স্টাফ রিপোর্টার (দিনাজপুর২৪.কম) দিনাজপুরে একজন ভাড়াটিয়া দোকানদার অন্যের দোকান ভাড়া নিয়ে ব্যবসা পরিচালনা করে আসছিল। কিন্তু হঠাৎ করে সে নিজেই ঐ দোকানের মালিক সেজে অন্যের কাছে দোকান সাবলেট ভাড়া দিয়ে টাকা নিচ্ছে দিনের পর দিন। বিষয়টি জানতে পেরে উক্ত রিগাল ফার্নিচার দিনাজপুর এর প্রোপাইটর বাদশা ইমাম আরাফাতের বিরুদ্ধে উকিল নোটিশ পাঠিয়েছে উক্ত দোকানের বৈধ মালিক মোহাম্মদ আলী চৌধুরী।
জজকোর্ট, দিনাজপুরের এ্যাডভোকেট মো. তাজরুল ইসলাম উকিল নোটিশে বলেন, দক্ষিণ মুন্সিপাড়া, দিনাজপুর সদরের আশরাফুজ্জামানের পুত্র বাদশা ইমাম আরাফাত, মুন্সিপাড়া দিনাজপুর সদর এলাকার মরহুম নুরুল হুদা চৌধুরীর পুত্র মোহাম্মদ আলী চৌধুরীর কাছ থেকে ফার্নিচার দোকান করবে বলে ০১/০৪/২০১৯ হতে ০২/০৪/২০২৪ পর্যন্ত চুক্তি হয়। চুক্তিতে ৫নং শর্তে বলা হয়েছে দোকান ঘরটি ২য়পক্ষ ভাড়াটিয়া অন্য কারও কাছে ভাড়া কিংবা সাবলেট দিতে পারবে না এবং ৬নং শর্তে বলা হয়েছে ২য় পক্ষ ভাড়াটিয়া উক্ত দোকানঘর চালাতে অপারগ হলে বা দোকান ঘর ছেড়ে দিতে চাইলে ৩ মাস পূর্বে মৌখিক বা লিখিতভাবে ১ম পক্ষকে জানাতে বাধ্য থাকবে ও ২য়পক্ষ দোকান ঘর ছেড়ে দিতে বাধ্য থাকবে। সেই সাথে ১মপক্ষ ২য়পক্ষকে জামানতের সমুদয় টাকা ফেরত দিতে বাধ্য থাকবেন।
কিন্তু উক্ত দোকানের ভাড়াটিয়া আইনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে নিজেই মালিক সেজে জনৈক অছির উদ্দিনের পুত্র ভয়ালপুর, বদলগাছি নওগা জেলার আসাদুল ইসলামকে সাবলেট হিসেবে ভুয়া মালিক সেজে দোকান ঘর ভাড়া দেয়।
এদিকে মোহাম্মদ আলী চৌধুরী ওরফে বাদশা চৌধুরী জানান, আমাকে না বলে রিগেল ফার্নিচারের বাদশা ইমাম আরাফাত আমার ভাড়াটিয়া সম্পূর্ণ অন্যায়ভাবে আইনের পরিপন্থি কাজ করেছেন। ফলে আমার সাথে তার চুক্তিটি বাতিল হয়ে গেছে। আমাকে কিছু না জানিয়ে সে অন্য বক্তিকে ভাড়া দিয়েছে। আমি আমার উকিলকে দিয়ে নোটিশ পাঠিয়েছি। আগামী ৭ দিনের মধ্যে আমার দোকান ঘর না ছাড়লে আমি আইনের আশ্রয় নেব।