1. dinajpur24@gmail.com : admin :
  2. erwinhigh@hidebox.org : adriannenaumann :
  3. dinajpur24@gmail.com : akashpcs :
  4. AnnelieseTheissen@final.intained.com : anneliesea57 :
  5. self@unliwalk.biz : brandymcguinness :
  6. ChristineTrent91@basic.intained.com : christinetrent4 :
  7. rosettaogren3451@dvd.dns-cloud.net : darrinsmalley71 :
  8. Dinah_Pirkle28@lovemail.top : dinahpirkle35 :
  9. emmie@a.get-bitcoins.online : earnestinemachad :
  10. EugeniaYancey97@join.dobunny.com : eugeniayancey33 :
  11. vandagullettezqsl@yahoo.com : gastonsugerman9 :
  12. cruz.sill.u.s.t.ra.t.eo91.811.4@gmail.com : howardb00686322 :
  13. azegovvasudev@mail.ru : latricebohr8 :
  14. jarrodworsnop@photo-impact.eu : lettie0112 :
  15. corinehockensmith409@gay.theworkpc.com : meaganfeldman5 :
  16. kenmacdonald@hidebox.org : moset2566069 :
  17. news@dinajpur24.com : nalam :
  18. marianne@e.linklist.club : noblestepp6504 :
  19. NonaShenton@miss.kellergy.com : nonashenton3144 :
  20. armandowray@freundin.ru : normamedlock :
  21. rubyfdb1f@mail.ru : paulinajarman2 :
  22. vaughnfrodsham2412@456.dns-cloud.net : reneseward95 :
  23. Roosevelt_Fontenot@speaker.buypbn.com : rooseveltfonteno :
  24. Sonya.Hite@g.dietingadvise.club : sonya48q5311114 :
  25. gorizontowrostislaw@mail.ru : spencer0759 :
  26. jcsuave@yahoo.com : vaniabarkley :
বুধবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৯, ১১:৩০ পূর্বাহ্ন
নোটিশ :
নতুন রুপে আসছে দিনাজপুর২৪.কম! ২০১০ সাল থেকে উত্তরবঙ্গের পুরনো নিউজ পোর্টালটির জন্য দেশব্যাপী সাংবাদিক, বিজ্ঞাপনদাতা প্রয়োজন। সারাদেশে সংবাদকর্মী নিয়োগ দেয়া হবে। আগ্রহীরা এখনই প্রয়োজনীয় জীবন বৃত্তান্ত সহ সিভি dinajpur24@gmail.com এ ইমেইলে পাঠান।

দিনাজপুরে চালের দাম বৃদ্ধি : মানুষের দুর্ভোগ চরমে

  • আপডেট সময় : মঙ্গলবার, ২৫ এপ্রিল, ২০১৭
  • ০ বার পঠিত

মোঃ নূর ইসলাম নয়ন, চীফ নিউজ এডিটর (দিনাজপুর২৪.কম) দিনাজপুরের হাট-বাজারে গত কয়েক দিন ধরে ক্রমাগতভাবে বেড়েই চলেছে সব ধরনের চালের দাম। গত কয়েক দিনের ব্যবধানে পাইকারি ও খুচরা বাজারে প্রতি কেজি চালে ২ থেকে ৬ টাকা পর্যন্ত বৃদ্ধি পেয়েছে। হঠাৎ এই চালের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় বিশেষ করে নিম্নবিত্ত আয়ের মানুষ ও শ্রমিক শ্রেণি পড়েছে মহাবিপাকে।
বাজার অনুসন্ধানে চালের দাম বাড়ার কারণগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে, ধানের দাম বেশি হওয়া, অটো রাইসমিল মালিকদের অতিরিক্ত ধান ও চালের মজুত গড়ে তোলা, চাতাল ও হাসকিং মিলগুলো চালু না থাকা এবং সরকারিভাবে কেনা ধান হাসকিং মিলে ক্রাসিং করতে না দেয়া। হঠাৎ করেই খাদ্যভান্ডার দিনাজপুরে চালের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় নিম্ন ও মধ্যবিত্ত মানুষ দুর্ভোগে পড়েছেন।
গত এক সপ্তাহের ব্যবধানে গুটি স্বর্ণ, সুমন স্বর্ণ, বিআর ২৮, মিনিকেট চালের প্রতি কেজি ৪ থেকে ৬ টাকা বৃদ্ধি পেয়েছে। বর্তমানে গুটি স্বর্ণ ৩৮ টাকা, সুমন স্বর্ণ ৪০ টাকা, মিনিকেট ৪৬/৪৮ টাকা প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে। হঠাৎ করে চালের দাম বৃদ্ধির কারণে খেটে খাওয়া মানুষের ক্রয় ক্ষমতার বাইরে চলে গেছে। দিনাজপুর চালকল মালিক সমিতির সভাপতি সারোয়ার আশফাক লিয়ন চালের দাম বৃদ্ধির কারণ হিসেবে উল্লেখ করেন মৌসুমের শেষ পর্যায়ে আসায় দেশে মজুত কম।
এদিকে পাইকারী বাজারে বস্তা  প্রতি চালের দাম (৫০ কেজি) ৫০ টাকা থেকে ১০০ টাকা বৃদ্ধি পেলেও খুচরা বাজারে বেড়েছে ১০০ টাকা থেকে ১৫০ টাকা পর্যন্ত।
এদিকে ধানের বাজারে খবর নিয়ে জানা যায়, গত তিন সপ্তাহের ব্যবধানে ধানের বাজারে শুধুমাত্র গুটি স্বর্ণ ধানের দাম প্রতি বস্তা (৭৫ কেজি) ৫০ থেকে ৭৫ টাকা পর্যন্ত বৃদ্ধি পেয়েছে। সে হিসেবে শুধু গুটি স্বর্ণ চালের দাম বাড়ার কথা। কিন্তু বাজারে সব ধরণের চালের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে।
অপরদিকে বড় বড় ব্যবসায়ীরা অবৈধ মজুদ করে বাজারে কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করেছে। তারা নিজেরাই সিন্ডিকেট করে নিয়ন্ত্রন করছে ধান ও চালের বাজার। দিনাজপুরে শুরু করেছেন সিন্ডিকেট ব্যবসা।
দিনাজপুরে বিভিন্ন বাজার ঘুরে জানা যায়, বাজারে প্রকারভেদে বিভিন্ন প্রকার চালের দাম বেড়েছে বস্তা প্রতি ৫০ থেকে ১০০ টাকা পর্যন্ত। তবে সিদ্ধ কাঠারী ও সিদ্ধ বাসমতি চালের দাম বাড়েনি।

ব্যবসায়ী রানা জানান, গত ২০ দিনের ব্যবধানে মিনিকেট চাল বস্তায় ২ হাজার ২০০ টাকারস্থলে ২ হাজার ৬০ টাকা, আঠাশ চাল বস্তা প্রতি ২ হাজার ১ শ টাকারস্থলে ২ হাজার ৭০ টাকা, স্বর্ণ ও পায়জাম চাল ১ হাজার ৭ শ টাকারস্থলে ১ হাজার ৮ শত টাকা, গুটি স্বর্ণ ১ হাজার ৬ টাকারস্থলে ১ হাজার ৬০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। হাইব্রিড চাল বাজারে পাওয়া যাচ্ছেনা।

খুচরা চাল ব্যবসায়ীরা বলছেন, পাইকারী বড় ব্যবসায়ীরা নিজেদের মধ্যে সিন্ডিকেট তৈরী করে ধান মজুদ করে রেখেছেন। এখন বাজারে পর্যাপ্ত পরিমানে ধান উঠছে না। ফলে সেইসব ব্যবসায়ীরা ধান সংকট দেখিয়ে বেশি মূল্যে চাল বিক্রি করছেন। আর সিন্ডিকেট হওয়ায় সকলেই চালের একই মূল্য হাকাচ্ছেন। এতে করে চাল ব্যবসায়ীদেরকে অনেকটা বাধ্য হয়েই বেশি মূল্যে চাল ক্রয় করতে হচ্ছে। ফলে স্বাভাবিকভাবেই বেড়ে যাচ্ছে চালের দাম।

বিরলের চাল ব্যবসায়ী মো. শফিকুল ইসলাম জানান, গত ২০ দিনে ধানের দাম বৃদ্ধি না পেলেও বড় ব্যবসায়ীরা নিজেদের মধ্যে সিন্ডিকেট তৈরী করে ধান মজুদ করে রেখে বাজারে ধানের দাম বৃদ্ধির অজুহাতে চালের দাম বৃদ্ধি করেছে। বর্তমানে যেসব জাতের চাল বাজারে বিক্রি হচ্ছে, সেসব জাতের ধান বাজারে পাওয়া যায়না। তাহলে ধানের দাম বাড়ার সাথে চালের দাম বৃদ্ধির কথা বলা হচ্ছে কেন?।
চাল ক্রয় করতে আসা এক ক্রেতা জানান, বাজারে গিয়ে প্রায় বিব্রত হতে হয়। আজ এক দাম তো কাল আরেক দাম।
জসিম নামে চালক্রেতা জানান, আমরা নিম্ন আয়ের মানুষ। সম্ভব হয় না একসাথে অনেক চাল কিনে রাখি। ৫/৭ কেজি করে চাল ক্রয় করি। কয়েকদিন থেকেই চালের বাজার বেড়ে গেছে। আরও বাড়বে। কিন্তু আমাদের আয় তো আর বাড়বে না।
সবশেষে খবরে জানা গেছে, সপ্তাহ জুড়ে দিনাজপুরে কাল বৈশাখী ঝড়ের কারণে ফসলের ক্ষতি হওয়ার ফলে চালের দাম আরও বৃদ্ধি পাবে কিনা এনিয়ে দুশ্চিন্তায় পড়েছেন খেটে খাওয়া নিম্ন এবং মধবিত্ত আয়ের মানুষ।

নিউজট শেয়ার করুন..

এই ক্যাটাগরির আরো খবর