(দিনাজপুর২৪.কম) দিনাজপুরের জয়নন্দ ডিগ্রী কলেজকে জাতীয় করনের সিদ্ধান্ত পুনঃ বহালের দাবীতে কাহারোল উপজেলা নির্বাহী অফিসারের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবরে স্মারকলিপি প্রদান করা হয়েছে।
কাহারোল উপজেলার জয়নন্দ ডিগ্রী কলেজ এর শিক্ষক, কর্মচারী, শিক্ষর্থী ও এলাকাবাসী গত বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ আসলাম মোল্লা’র কার্যালয়ে উপস্থিত হয়ে জয়নন্দ ডিগ্রী কলেজকে জাতীয় করনের সিদ্ধান্ত পুনঃ বহালের দাবীতে প্রধানমন্ত্রী বরাবরে স্মারকলিপি প্রদান করেন। স্মারকলিপি প্রদান শেষে সাংবাদিক সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন জয়নন্দ ডিগ্রী কলেজ এর অধ্যক্ষ মোঃ তহিদুল ইসলাম।
এসময় তিনি বলেন, বাংলাদেশ সরকার গত ৩০ জুন দেশের ১৯৯টি কলেজ সরকারী করণের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে। সেই সিদ্ধান্ত মোতাবেক মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের পত্র নং-০৩.০৩১.০০০.০০.০০.০১.২০১৬-৩২ তারিখ ২৮/০৬/২০১৬ইং তারিখে কাহারোল উপজেলার জয়নন্দ ডিগ্রী কলেজ এর নাম জাতীয় করনের তালিকায় অর্ন্তভ’ক্ত হয়। কিন্তু একটি স্বার্থান্বেষী মহল কাহারোল উপজেলার শ্রেষ্ঠ ও ১মাত্র ডিগ্রী ও অনার্স কলেজকে পাশ কাটিয়ে কাহারোল উচ্চ মাধ্যমিক কলেজকে সরকারী করনের ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। অবোকাঠামোর দিক থেকে কলেজটি অনেক এগিয়ে রয়েছে তবুও শিক্ষা মন্ত্রাণলয়ের সুত্র নং শাখা-২০ এর পত্র নং ৩৭.০০.০০০০.০৮১.১৫.০৯৭.১৫-৩৭৪ তারিখ- ১৬/০৮/২০১৬ খ্রিঃ এবং মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের স্মারক নং ৭এ/০৯সি-২/২০১৩/৬৬৬৯/৪ খ্রিঃ অনুযায়ী জয়নন্দ ডিগ্রী কলেজকে জাতীয়করনের তালিকা থেকে বাদ দিয়ে কাহারোল কলেজকে জাতীয় করনের তালিকা ভুক্ত করা হয়।আমরা বর্তমানে মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর আশু হস্তক্ষেপ কামনা করে জয় জয়নন্দ ডিগ্রী কলেজকে সরকারী করনের পুনঃ বহালের দাবী জানাচ্ছি।
এসময় উপস্থিত ছিলেন ডাবোর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান সত্যজিৎ রায়, সাবেক চেয়ারম্যান বিশ্বজিৎ রায়, ডাঃ রাজেন্দ্র নাথ দেবনাথ, উপাধ্যক্ষ মোহন চন্দ্র রায়, আওয়ামীলীগ নেতা হাসেম, সচিন্দ্র নাথ রায়, ছাত্রলীগ নেতা ফরহাদ হোসেন, শোভন রায়, পঙ্কজ রায়, নবাব ইসলাম, নরোত্তম রায়, কলেজ ছাত্রীদের পক্ষে বৃষ্টি রায়, আশা রায় প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।
উল্লেখ্য, জয়নন্দ ডিগ্রী কলেজকে জাতীয় করনের সিদ্ধন্ত পুনঃ বহালের দাবীতে গত ৫দিন ধরে অবরোধ ও বিক্ষোভ সমাবেশ  চলাকালিন সময়ে নির্বাহী অফিসার উপস্থিত হয়ে অবরোধ কর্মসুচী প্রত্যাহারের আহব্বান জানান ও প্রধান মন্ত্রি বরাবরে স্মারক লিপি গ্রহন করেন।