স্টাফ রিপোর্টার (দিনাজপুর২৪.কম) জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম না হলে বাংলাদেশ আজও স্বাধীন হত না। দেশ পরাধীনতার শৃংঙ্খলে আবদ্ধ হয়ে জুলুম ও শোষনে জর্জরিত হত। পাক হানাদাররা আমাদের মা-বোন ও শিশু কিশোরদের নিরাপদে থাকতে দিত না। পাকিস্তানি বাহিনীর অন্যায় অত্যাচারের বিরুদ্ধে বাংলার তৎকালীন অবিসংবাদিত নেতা দরাজ গলায় যখন স্বাধীনতার ডাক দিলেন, তখন বাংলার মুক্তিকামি মানুষ তার ডাকে সাড়া দিয়ে স্বাধীনতার সংগ্রামে সামিল হন। এক পর্যায়ে দেশ হানাদার মুক্ত হয়ে স্বাধীনভাবে চলতে শুরু করে। কিন্তু এটা স্বাধীনতা বিরোধী, মৌলবাদী, জামায়াত-শিবিরদের সহ্য হয়নি। তাদের ষড়যন্ত্রে ১৯৭৫ সালে ১৫ আগষ্ট জাতির জনককে স্বপরিবারে হত্যা করে ওই স্বাধীনতা বিরোধী চক্র। পুরো জাতি হয়ে পড়ে পিতৃ হারা। দিশেহারা জাতিকে পরবর্তীতে নেতৃত্ব দিতে আসেন তারই কন্যা দেশ রতœ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি তার পিতার মতো এ দেশের মাটি ও মানুষকে ভালো বেসে রাজনীতি শুরু করেন। বিশেষ করে শেখ রাসেলের মতো শিশু ভাইকে হারিয়ে শেখ হাসিনা শিশুদের প্রতি অনেকটাই দূর্বল। তিনি শিশুদের পরম যতেœ গড়ে তোলায় বিশ^াসী। এমন শিশুবান্ধব প্রধানমন্ত্রী আর দেশে হবে কি না সন্দেহ। কিন্তু এমন কমল মনের প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বাধীন সরকারের বিরুদ্ধেও চলছে নানা ষড়যন্ত্র। এখনো স্বাধীনতা বিরোধী চক্রটি জঙ্গীবাদের নামে দেশকে অকার্যকর রাষ্ট্র হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে চায়। তাই স্ব স্ব অবস্থান থেকে সকলকে এই স্বাধীনতা বিরোধী চক্র তথা জঙ্গীবাদিদের ঐক্যবদ্ধভাবে প্রতিহত করতে হবে।
১৫ আগষ্ট জাতির পিতা শেখ মুজিবুর রহমানের ৪১তম শাহাদৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষ্যে বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলা ঘোষিত মাসব্যাপী কর্মসূচীর অংশ হিসেবে গতকাল শনিবার বিকেলে দিনাজপুর গর্ভেশ^রী শ্মশান কালিমন্দির এলাকায় শিশু কিশোরদের মাঝে গাছ বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিশু কিশোর মেলার কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক ও প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক পুরস্কারপ্রাপ্ত শিশু সংগঠক মনিরুজ্জামান জুয়েল উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। দিনাজপুর জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক আবুল কাসেম লিটনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শাহজাহান নভেল, সাংস্কৃতিক সম্পাদক প্রদীপ কুমার ঘোষ, শ্মশান কমিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি কাঞ্চন দে, জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত শিল্পী চৈতী, রাফি, মেলার সদস্য পাপ্পা চক্রবর্তী, জয়ন্ত ঘোষ, দুর্জয় দাস, তিতুন, অনিত কুন্ডু প্রমুখ।
উল্লেখ্য, মাসব্যাপী কর্মসূচীর অংশ হিসেবে আগামী ১২ আগষ্ট শুক্রবার সকাল ৯টায় দিনাজপুর শিশু একাডেমী মিলনায়তনে সুন্দর হাতের লেখা ও চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে।