(দিনাজপুর২৪.কম) দিনাজপুরের খানসামায় চিকিৎসকের অবহলোয় মোঃ লুহিন নামে আড়াই বছরের এক শিশু মৃত্যুর ঘটনায় হাসপাতাল ঘেরাও করে শিশুর পরিবারের লোকজন ও এলাবাসী। মোঃ লুহিন উপজেলার খামার পাড়া ইউনিয়নের ভান্ডারদহ গ্রামের মোঃ মিজানুর রহমানের ছেলে। সোমবার সকাল ১০টায় বাড়ীর খানসামা উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে(পাকেরহাট) এ ঘটনা ঘটে। স্থানীয় সূত্রে জানা যায় , খামার পাড়া ইউনিয়নের ভান্ডারদহ গ্রামের মোঃ মিজানুর রহমানের ছেলে মোঃ লুহিন সকাল সাড়ে৮টায় বাড়ীর পার্শ্বে পুকুরে ধারে খেলা করছিল। খেলার এসময় সে পুকুরে পড়ে যায়। পরিবারের লোকজন তাকে উদ্ধার করে আশংকাজনক অবস্থায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্্ের নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে। লুহিনের পিতা মোঃ মিজানুর রহমান অভিযোগ করে বলেন, হাসপাতালে নিয়ে আসার পর কোন চিকিৎসকে পাওয়া যায় নি। বেশকিছুক্ষণ পর চিকিৎসক আসার পর শিশুটিকে না চিকিৎসা শুরু না করে বলে সে মৃত তাকে লাশ নিয়ে যান।
অভিযুক্ত চিকিৎসক উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার মোঃ কামাল হোসেন অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, শিশুটিকে হাসপাতালে নিয়ে আসার আগেই সে মৃত্যু বরণ করেছে। এলাকাবাসী বিষয়টি না বুঝে আবেগ প্রবণ আচরণ করছেন। এখানে আমাদের কোন হাত নেই।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ সাজেবুর রহমান জানান, এই ঘটনায় আমরা একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে ঘটনার প্রকৃত সত্যকে বের করে আনবো, আশা করছি বিষয়টি দ্রুত সমাধান হবে।
খানসামা থানার ওসি কৃষ্ণ কুমার সরকার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, পরিস্থিতি এখন পর্যন্ত নিয়ন্ত্রণে আছে। সমস্যা সমাধানে আলোচনা চলছে। -সাকিব