মো. নুরুন্নবী বাবু (দিনাজপুর২৪.কম)  দিনাজপুরের পার্বতীপুর রেল পুলিশের চরম গাফিলতি ও কর্তব্য অবহেলার কারনে গ্রামীনফোন ওয়ার হাউজের নিরাপত্তা প্রহরী আনাছার রহমান হত্যাকান্ডের এজাহারভুক্ত আসামীরা এখন গ্রেফতার হয়নি। ঘটনার দিন অপর দুই প্রহরীকে আটকের পরেও অজ্ঞাত কারনে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। অপরদিকে ভিসেরা রিপোর্টে শ্বাসরোধ করে হত্যা উল্লেখ্য করা হলেও ৭ মাসেও আসামীদের গ্রেফতারের কোন ভুমিকা না থাকায় রহস্যের দানা বেঁধেছে। উল্লেখ্য, পার্বতীপুর শহরের প্রানকেন্দ্র রেলওয়ে সাহেবপাড়ায় গ্রামীনফোনের ওয়ার হাউজের নিরাপত্তা প্রহরী শহরের চান্দোয়াপাড়া মহল্লার মৃত-তোছাদ্দেক হোসেনের পুত্র আনাছার রহমানকে চলতি সালে ২ জানুয়ারী রাতে কোন এক সময়ে পরিকল্পিত ভাবে হত্যা করা হয়। ওয়ার হাউজের উপরে উঠার সিড়িঁর নিচে মালামাল রাখার স্থান থেকে তার মরদেহ রাখা হয়। সকাল সাড়ে ৭টার সময় অপর নিরাপত্তা প্রহরী মাহাবুর রহমান (৩০) নিহতের স্ত্রীকে মুঠোফোনে খবর দিলে আনাছানকে খুজাখোজি শুরু হয়। রেলওয়ে থানা পুলিশ ও স্থানীয় লোকজন ওয়ার হাউজের তালা ভেঙ্গে সিড়িঁর নিচে মালামাল রাখার স্থান থেকে তার মরদেহ দেখতে পায়। রেলওয়ে সৈয়দপুর জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার দেওয়ান লালন আহমেদ, পার্বতীপুর রেল থানার ওসি একেএম লুৎফর রহমান, পার্বতীপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মাহমুদুল আলম ও পার্বতীপুর পৌর মেয়র ঘটনাস্থলে উপস্থিতিতে নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য দিনাজপুর মর্গে পাঠানো হয়।
এ ব্যাপারে পার্বতীপুর রেলওয়ে থানায় নিহতের স্ত্রী জমিলা বেগম বাদী হয়ে ওয়ার হাউজের দুই প্রহরী ও সিকুরেক্স সিকুরিটি সার্ভিস এর বগুড়াস্থ ব্যবস্থাপক গোলজার হোসেন, গ্রামীন ফোনের বগুড়াস্থ ব্যবস্থাপক তাইফুর রহমানসহ ৪ জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করেছেন।
নিহত আনাছার হত্যাকান্ড মামলার বাদী ও নিহতের স্ত্রী জামিলা বেগম জানিয়েছেন, গত ১১ মার্চ ভিসেরা রিপোর্টে আনাছারকে মৃত্যুর পূর্বে তাঁকে গলা চেপে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে বলে ঢাকার ফরেনসিক বিভাগের ডাঃ আলমগীর তার রিপোর্টে উল্লেখ করেছেন। তদন্তকারী কর্মকর্তা ও রেলওয়ে থানার অফিসার ইনচার্জের রহস্যজনক ভুমিকায় উদ্বিগ্ন নিহতের পরিবার। ওয়ার হাউজের নিরাপত্তা প্রহরী মহসিন আলী ও মাহবুবার রহমানকে আটক করে থানায় নিয়ে আসলেও অজ্ঞাত কারনে তাদেরকে ছেড়ে দেওয়া হয়। ঘটনার দিন ও পরদিন পার্বতীপুর রেলওয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ একেএম লুৎফর রহমান একাধীকবার ব্যবস্থাপকের সাথে কয়েক দফা মোবাইলফোনে কথা বলেন। বিষয়টি বোধগম্য নয়।
শহরের প্রানকেন্দ্র রেলওয়ে সাহেবপাড়ায় গ্রামীনফোনের ওয়ার হাউজের নিরাপত্তা প্রহরী আনাছার হত্যাকান্ড ঘটনার ৭ মাস অতিবাহীত হলেও পার্বতীপুর রেলওয়ে পুলিশ কোন আসামী গ্রেফতার করেনি।