(দিনাজপুর২৪.কম) অধিনায়ক বিরাট কোহলির সঙ্গে মানোমালিন্যের কারণেই যে, ভারতীয় ক্রিকেট দলের কোচের দায়িত্ব থেকে পদত্যাগ করেছেন সেটা স্পষ্ট করেই জানিয়েছেন অনিল কুম্বলে। তার পদত্যাগের একদিন না যেতেই তাদের মধ্যকার সম্পর্কের তিক্ততা আরো জানা গেলো। সর্বশেষ ৬ মাস নাকি কোহলি ও কুম্বলে একে অন্যের সঙ্গে কথা বলেননি। এমন কি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ফাইনালের আগে কোচ কুম্বলেকে টিম মিটিংয়ে সবার সামনে অপমান করেন অধিনায়ক কোহলি। ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিসিআই) একজন কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে ভারতীয় মিডিয়ার সামনে এমন কথা বলেছেন। কুম্বলে ভারতীয় ক্রিকেট দলের কোচের দায়িত্ব পালন করেছেন এক বছর। এরমধ্যে প্রথম কয়েকদিন কোহলির সঙ্গে তার সম্পর্ক মোটামুটি ছিল। কিন্তু এরপর সম্পর্কের অবনতি হয়। বিষয়টি নিয়ে ওই কর্মকর্তা বলেন, ‘গত ডিসেম্বরে ইংল্যান্ড সিরিজের পর থেকেই দুজনের কথা বলা একরকম বন্ধই ছিল। আমরা কুম্বলেকে আলাদাভাবে এসব ব্যাপারে আগেও জিজ্ঞাসা করেছি। কিন্তু তিনি বলেছিলেন কোনো সমস্যা নেই। শেষ পর্যন্ত এই দ্বন্দ্বের কারণেই কুম্বলেকে সরে দাঁড়াতে হয়েছে। কোহলি যেমনটা চেয়েছিলেন তেমনটাই হয়েছে। কুম্বলের বিদায়ের পর তার ওপর চাপটাও অনেক বেড়ে যাবে।’
এবার চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ফাইনালে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী পাকিস্তানের কাছে ১৮০ রানের বিশাল ব্যবধানে হারে ভারত। ওই ফাইনালের একদিন আগে টিম মিটিং হয়। ছিলেন কোচ কুম্বলে ও অধিনায়ক কোহলি। ওই মিটিংয়ে তাদের মধে তর্কবিতর্ক হয়। এক পর্যায়ে সবার সামনে কুম্বলেকে অপমান করেন কোহলি। সেদিনের ঘটনা বর্ণনা করে ওই কর্মকর্তা বলেন, ‘সেদিন কুম্বলের মুখের ওপর অধিনায়ক বলে দেন যে, দলের কেউ আপনাকে কোচ হিসেবে চায় না। এরপর আর কিছু বলার থাকে না। কুম্বলে নিজেও বলে দিলেন, ঠিক আছে, যথেষ্ঠ হয়েছে, আর না।’ তিনি আরো জানান, এতকিছুর পরও নতুন কোচ নিয়োগের আগে কুম্বলেকে নিয়েই ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে যেতে চেয়েছিল ভারত। তার জন্য ওয়েস্ট ইন্ডিজ বিমানের টিকিটও কাটা হয়। কিন্তু শেষ মুহূর্তে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফর থেকে নিজেকে বিরত রাখেন কুম্বলে। -ডেস্ক