(দিনাজপুর২৪.কম) এবারের বোরো মৌসুমে ৩৮ টাকা কেজি দরে চাল এবং ২৬ টাকায় ধান কেনার সিদ্ধান্ত জানিয়েছে সরকার। আগামী ২ মে থেকে ৩১ অগাস্ট পর্যন্ত সরকারিভাবে এই ধান ও চাল সংগ্রহ করা হবে বলে খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম জানিয়েছেন। আজ রোববার সচিবালয়ে খাদ্য পরিকল্পনা ও পরিধারণ কমিটির বৈঠক শেষে এক ব্রিফিংয়ে তিনি এই তথ্য জানান। এর ফলে এবার বোরো চাষিরা সরকারের কাছে ধান বিক্রি করে গতবারের তুলনায় কেজিতে ২ টাকা বেশি দাম পাবেন। আর মিলাররা সরকারের কাছে এবার চাল বিক্রি করে পাবেন গতবারের চেয়ে ৪ টাকা বেশি। উৎপাদন কম হওয়ায় এবার সরকারিভাবে গম সংগ্রহ করা হবে না জানিয়ে তিনি বলেন, এবার দেশে ১৩ লাখ মেট্রিক টনের মত গম উৎপাদন হবে।
খাদ্যমন্ত্রী বলেন, বোরোর বাম্পার ফলন হওয়ায় সরকার এবার ১০ লাখ মেট্রিক টন বোরো ধান-চাল সংগ্রহের লক্ষ্য ঠিক করেছে। এর মধ্যে ৮ লাখ মেট্রিক টন সিদ্ধ চাল, ১ লাখ টন আতপ চাল এবং দেড় লাখ টন বোরো ধান (দেড় লাখ টন ধানে ১ লাখ টন চাল পাওয়া যাবে) সংগ্রহ করবে সরকার। এবার বোরো চালের উৎপাদন খরচ ৩৬ টাকা ধরা হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, উৎপাদন খরচের চেয়ে কেজিতে ২ টাকা বেশিতে ৩৮ টাকা কেজি দরে বোরো চাল কিনবে সরকার। আর আতপ চাল ৩৭ টাকা এবং বোরো ধান ২৬ টাকা কেজি দরে কেনা হবে।
গত বছর ২৪ টাকা কেজি দরে ৭ লাখ টন ধান ও ৩৪ টাকা দরে ৮ লাখ টন চাল কিনেছিল সরকার। এবার মজুদ ভালো থাকায় অভ্যন্তরীণভাবে সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা কম ধরা হয়েছে। যা সংগ্রহ করা হবে, তার বেশিরভাগটাই চাল। অসময়ে টানা বর্ষণ, পাহাড়ি ঢল ও তিন দফা বন্যায় গতবছর বোরো ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়। বাজার নিয়ন্ত্রণে সরকার শুল্ক কমিয়ে এনে ব্যাপক হারে চাল আমদানির পথে যেতে বাধ্য হয়। প্রসঙ্গত খাদ্য মন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুযায়ী, সরকারি গুদামগুলোতে এখন ৯ দশমিক ৬৯ লাখ মেট্রিক টন চাল এবং ৩ দশমিক ৬২ লাখ মেট্রিক টন গম মজুদ আছে। -ডেস্ক