-পুরনো ছবি

(দিনাজপুর২৪.কম) পঞ্চম ধাপে দেশের ২০ জেলার ২৯ পৌরসভায় ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে।আজ রোববার রোববার সকাল ৮টা থেকে এ ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে, যা চলবে  বিকেল ৪টা পর্যন্ত। পঞ্চম ধাপের এ পৌর নির্বাচনে সব পৌরসভাতেই ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) মাধ্যমে ভোটগ্রহণ করা হচ্ছে। বিষয়টি নিয়ে সাধারণ ভোটারদের মধ্যে আগ্রহের পাশাপাশি আশঙ্কাও রয়েছে।

মেয়র পদে দলীয় প্রতীকের এ নির্বাচনে অনেক দল অংশ নিলেও সংশ্লিষ্টরা বলছেন, বরাবরের মতো মূল প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে নৌকা ও ধানের শীষ প্রতীকধারী প্রার্থীর মধ্যে।

এদিকে নির্বাচন কমিশনের প্রত্যাশা, আগের চার ধাপের চেয়ে এবারের ভোটানুষ্ঠান ভালো হবে। আজকের ভোট সামনে রেখে গতকাল শনিবার বিকেলে আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। এ সময় নির্বাচন কমিশনের (ইসি) সচিব মো. হুমায়ুন কবীর খোন্দকার বলেন, ‘নির্বাচনে শান্তিপূর্ণ পরিবেশ নিশ্চিত করতে সব ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। আমরা আশা করছি, একটা ফ্রি, ফেয়ার, পার্টিসিপেটরি ও উৎসবমুখর পরিবেশে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।’

পৌর নির্বাচন ঘিরে দেশের বিভিন্ন স্থানে সংঘটিত সহিংসতার বিষয়টি দৃষ্টিগোচর করা হলে সচিব বলেন, ‘যেখানে সমস্যা হচ্ছে, সেখানেই ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। যেসব বিষয় আমরা জানতে পারছি, সেগুলোর বিষয়ে মাঠে আইনশৃঙ্খলা রক্ষার দায়িত্বে যারা আছেন, তাদের ব্যবস্থা নিতে বলে দিচ্ছি।’

এক প্রশ্নের জবাবে ইসি সচিব বলেন, ‘নির্বাচনে সহিংসতায় মৃত্যু অবশ্যই দুঃখজনক। তবে আমরা আশা করছি, আগামী দিনে এ ধরনের ঘটনা আর ঘটবে না। এটিই আমাদের আশা, এটিই আমাদের প্রত্যাশা। আমরা ওয়েট করি, দেখি’

এবার বিশেষ কী উদ্যোগ বা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আপনারা জানেন আমাদের নীতিমালা অনুযায়ী কোথায় কতজন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন করা হবে, কীভাবে হবে এটির একটি গাইড লাইন আছে। সে অনুযায়ী আমরা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে অবগত করেছি। তারাও সেভাবেই ব্যবস্থা নিচ্ছেন। আমরা আশা করছি, নির্বাচন ভালো হবে।’

ভোটারদের ভোটকেন্দ্রে আসার মতো পরিবেশ তৈরি করা গেছে কিনা- এ প্রশ্নের উত্তরে ইসি সচিব বলেন, ‘আমরা আশা করি, সেই পরিবেশ তৈরি করা গেছে। আমরা কিছুক্ষণ আগেও রিটার্নিং অফিসারদের সঙ্গে কথা বলেছি। তারা জানিয়েছেন সিচুয়েশন ভালো। যেহেতু আমরা এবার সব পৌরসভায় ইভিএমের মাধ্যমে ভোটগ্রহণ করছি, সুতরাং ব্যালট পেপার ছেঁড়াছিঁড়ির কোনো বিষয় নেই। এবার ইভিএমের মাধ্যমে ভোট হবে। যার ভোট শুধু তিনিই দিতে পারবেন’

ইসির জনসংযোগ পরিচালক যুগ্ম সচিব এসএম আসাদুজ্জামান জানান, এ ধাপে মেয়র পদে নির্বাচনী লড়াইয়ে রয়েছেন ১০০ প্রার্থী। আর সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ৩৬৬ জন এবং সাধারণ কাউন্সিলর পদে ১৩১৮ জন লড়ছেন। ৩০ পৌরসভায় ভোটার রয়েছেন ১৪ লাখের বেশি।করোনা ভাইরাস মহামারির মধ্যে এবার ছয় ধাপে পৌরসভা নির্বাচনের আয়োজন করেছে ইসি। প্রথম ধাপের তফসিলের ২৪টি পৌরসভায় ইভিএমে ভোট হয় ২৮ ডিসেম্বর। এর পর ১৬ জানুয়ারি, ৩০ জানুয়ারি এবং ১৪ ফেব্রুয়ারি পরের তিন ধাপের ভোট হয়। রবিবার পঞ্চম ধাপের ভোট শেষে ১১ এপ্রিল ষষ্ঠ ধাপে ৯টি পৌরসভায় ভোট হওয়ার কথা রয়েছে।

পঞ্চম ধাপে যেসব পৌরসভায় ভোট : চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া, রাউজান, মিরসরাই ও বারইয়ারহাট; লক্ষ্মীপুরের রায়পুর, চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোল, হবিগঞ্জ, জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ, ইসলামপুর, মাদারগঞ্জ ও জামালপুর, রাজশাহীর চারঘাট ও দুর্গাপুর, বগুড়া, মানিকগঞ্জের সিংগাইর, চাঁদপুরের মতলব ও শাহরাস্তি, যশোরের কেশবপুর ও যশোর, মাদারীপুরের শিবচর ও মাদারীপুর, রংপুরের হারাগাছ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ ও মহেশপুর, জয়পুরহাট, ময়মনসিংহের নান্দাইল, ভোলা এবং গাজীপুরের কালীগঞ্জ। -ডেস্ক