মো. আফজাল হোসেন (দিনাজপুর২৪.কম)  দিনাজপুরে ফুলবাড়ীতে ২৬শে আগস্ট গণঅভ্যুথান দিবস পালনের লক্ষ্যে প্রতিবাদ ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত। আজ শনিবার ৮ই আগস্ট বিকেল ৪টায় পৌরশহরের নিমতলা মোড়ে জাতীয় গণফ্রন্টের আয়োজনে ও হাজী ময়নুদ্দীন এর সভাপতিত্বে ২৬শে আগস্ট পালন উপলক্ষ্যে প্রতিবাদ ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভায় প্রধান বক্তা হিসাবে বক্তব্য রাখেন সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ আমিনুল ইসলাম বাবলু। তিনি বলেন জাতীয় স্বার্থ পদ্ধতিগত প্রশ্ন, সমন্বিত জ্বালানিনীতি ব্যতিরেখে সরকারি উদ্যোগে ফুলবাড়ী বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি উন্মুক্ত করণে যে ষড়যন্ত্র চলছে ঐ মরণ ফাঁদে পা দেবে না এই এলাকার জনগণ। তিনি আরও বলেন ফুলবাড়ী বড়পুকুরিয়া তথা সারাদেশের জাতীয় সম্পদ রক্ষার লক্ষ্যে দেশী বিদেশী সকল ষড়যন্ত্র নস্যাৎ করতে আপনাদেরকে সাথে নিয়ে আমরা দীর্ঘ সময় রাজপথে থেকে আন্দোলন করে আসছি। ভবিষ্যতেও থাকব গত ১১ বৎসর ধরে আমরা বিরোতিহীন ভাবে রাজপথে আছি। কৃষক আন্দোলন, শ্রমিক আন্দোলন, ছাত্র আন্দোলন, আদিবাসি সহ ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র জাতিসত্তার আন্দোলন, নারী মুক্তি আন্দোলন সহ অন্যায়ের বিরুদ্ধে জাতীয় গণফ্রন্ট রেখেছে আগ্রণী ভূমিকা। জাতীয় সম্পদ রক্ষা মেহনতি মানুষের মক্তির লক্ষ্যে সাম্রাজ্যবাদ, আদিপত্য বাদ ও দেশীয় দালালদের উৎখাত না করা পর্যন্ত লড়াই চালিয়ে যাওয়ার কথা বলেন। চুড়ান্ত বিজয়ের জন্য সাংগঠিনক শক্তি, রাজনৈতিক দৃঢ়তা ও সেই সাথে আপনাদের ব্যাপক সমর্থন, সাহায্য ও আর্থিক সহযোগীতা চাচ্ছি। ২৬শে আগস্ট লড়াই সংগ্রামে এই কঠিন পিচ্ছিল পথে আমিন, সালেকিন, তরিকুল এর জীবন উৎসর্গ আমাদের প্রেরণা ও জনগনই আমাদের ভরসা। এই এলকার মানুষ কিছু অসৎ রাজনীতিবীদ ও দালালদের ফাঁদে পা দিয়ে বড়পুকুরিয়ায় যেমন বসত ভিটা, আবাদি জমি, মসজিদ, মন্দির, স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা হারিয়ে এখন তারা বুঝতে পারছে আমাদের ভবিষ্যৎ হারিয়েছি। এ রকম অবস্থা বিরাজ করবে আবারো বড় পুকুরিয়া ও ফুলবাড়ীতে। তাই আপনারা সচেতন না হলে বিদেশী ও দেশী দালালেরা ঢুকে পড়বে।
উক্ত প্রতিবাদ সভায় ও ২৬শে আগস্ট পালনে অন্যান্য দের মধ্যে উপস্থেত থেকে বক্তব্য রাখেন ফুলবাড়ী বিপ্লবী ছাত্র মৈত্রির আহব্বায়ক মোঃ শাহাজামান হোসেন একরামুল, শ্রমিক নেতা মোঃ আব্দুল জব্বার, কৃষক নেতা শ্রী বিকাশ চন্দ্র রায় ও গণফ্রন্টের কমল চক্রবর্তী ও আবুল খায়ের প্রমুখ।