pমো. নুরুন্নবী বাবু (দিনাজপুর২৪.কম)  পলাশবাড়ী উপজেলার কিশোরগাড়ী ইউনিয়ন ও ঘোড়াঘাট পৌরসভার দুই পারে প্রায় ২০ হাজার মানুষের যাতায়াতের একমাত্র ভরসা নৌকা। করতোয়া নদীর এই ঘাটের উপর দিয়ে একটি ব্রীজের দাবীতে স্বাধিনতার ৪৬ বছর পেরিয়ে গেলেও তা আজও বাস্তবান হয়নি। কিশোরগাড়ী ইউনিয়ানসহ ঘোড়াঘাট পৌর এলাকার ২০ হাজার মানুষের দাবী হাজিরঘাট করতোয়া নদীর উপর দিয়ে একটি ব্রীজের। কিন্তু স্বাধিনতার ৪৬ বছর পার হলেও আজও তা বাস্তবায়ন হয়নি।এই দুই পারের মানুষের যাতায়াতের একমাত্র ভরসা নৌকা। কিশোরগাড়ী এলাকার লোকজনের ব্যাবসা বানিজ্যের ধান,চাউল ও রবিসষ্য নিয়ে ঘোড়াঘাটসহ শহরে যাতায়াতে তারা নানা সমস্যায় পরেন।এ অঞ্চলের মালামাল আনা নেয়ার জন্য নৌকা পথে প্রায় দূর্ঘটনায় পরতে হয়।এ ছাড়াও ছাত্র/ছাত্রীসহ শিশু কিশোরা নৌকায় চরে স্কুলে যাতায়াতের সময় পানিতে পরে বই খাতা নষ্ট হওয়াসহ দূর্ঘনার কবলে পরে অনেক শিশু কিশোরকে প্রান দিতে হয়েছে।এ ছারাও কমলমতি শিশুরা সময় মত ক্লাসে উপস্থিত হতে পারেনা। দুই পারের গ্রামবাসি জানান তাদের দীর্ঘ দিনের দাবী হাজিরঘাট নদীর উপর দিয়ে একটি ব্রীজ হলে গাইবান্ধা ও দিনাজপুর শহরের সঙ্গে তাদের যাতায়াতের সহজ পথ হবে। আজও পর্যন্ত কোন সরকার আমলে নেয়নি এই ঘাটে ব্রীজর তৈরীর জন্য। কিন্তু বিগত সময়ে নির্বাচন আসলে অনেক রাজনৈতিক নেতা প্রতিশ্রতি দিলেও তা আজও বাস্তবায়ন হয়নি। তবে দেশ এগিয়ে গেলেও এই এলাকার মানুষরা একটি ব্রীজের জন্য আজও পিছিয়ে আছে।