(দিনাজপুর২৪.কম) পাওনা এক লাখ টাকার মধ্যে ৮০ হাজার টাকা পরিশোধ করেছে যুবক রতন। বাকি ২০ হাজার টাকা বুধবার দেয়ার কথা ছিল। রাত ১০ টায় পাওনাদার আরিফ এ টাকার জন্য চাপ দেয়। এ নিয়ে আরিফ ও রতনের মধ্যে বাক বিতন্ডা হয়। এক পর্যায়ে ছোট ভাই দর্পন সেখানে উপস্থিত হন। তিনি বিষয়টি জানতে চান। এ নিয়ে তার সঙ্গেও বচসা হয়। আরিফ ক্ষিপ্ত হয়ে দর্পনের উপর ঝাপিয়ে পড়ে। উপর্যপুরি ছুরিকাঘাত করে। এতে দর্পন নিহত হয়। ঘটনাটি ঘটেছে  সিরাজগঞ্জ শহরের হোসেনপুর দক্ষিণ মহল্লায়। সদর থানার ওসি মোহাম্মদ দাউদ জানান। নিহত দর্পন ওই মহল্লার মৃত আব্দুর রহমান মাস্টারের ছেলে। ওসি বলেন, পাওনা টাকা নিয়ে দ্বন্দের কারনে দর্পন খুন হয়েছে। তার লাশ সদর হাসপাতাল মর্গে রয়েছে। স্থানীয়রা জানান, দর্পনের বড় ভাই রতনের কাছে একই মহল্লার জোয়াদ আলীর  ছেলে আরিফ হোসেন এক লাখ টাকা পেতেন। এর মধ্যে ৮০ হাজার টাকা পরিশোধ করেছিলেন রতন। বুধবার রাতে বাকি ২০ হাজার টাকা দেয়ার কথা ছিল। কিন্তু রতন ওই টাকা পরিশোধ করতে ব্যর্থ হওয়ায় আরিফ হোসেন ক্ষিপ্ত হন। পরে দর্পনসহ পরিবারের লোকজন এগিয়ে এলে উভয়পক্ষের বাক-বিতন্ডার এক পর্যায়ে সংঘর্ষ হয়। এক পর্যায়ে আরিফ প্রতিপক্ষ দর্পনকে উপুর্যপুরি ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়। গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে সিরাজগঞ্জ সদর হাসপাতালে নেয়ার পথে মারা যান তিনি। সিরাজগঞ্জ সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ডা. রোকন উদ্দিন বলেন, নিহতের গলায়, বুকে ও হাতে ধারালো ছুরির আঘাত রয়েছে। এ ঘটনার পর পুলিশ সুপার মিরাজ উদ্দিনরআহম্মেদ ঘটনাস্থল ও হাসপাতাল পরিদর্শন করেছেন। -ডেস্ক