ইসমাইল হোসেন (দিনাজপুর২৪.কম) জামালপুরে সরিষাবাড়ীতে ২০১৯ সালের এসএসসি পরীক্ষার প্রেকটিক্যাল ফি অতিরিক্ত নিচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে বিভিন্ন বিদ্যালয়ের বিরুদ্ধে। শিক্ষার্থীদের অভিযোগ সূত্রে উপজেলার কয়েকটি বিদ্যালয় ঘুরে দৃশ্যমান হয় অনুযোগের সত্যতা ও বাস্তবতা। মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের নীতিমালা অনুসারে প্রতিটি শিক্ষার্থী তথা পরীক্ষার্থীর নিকট হতে ফরমপূরণের সময় পরীক্ষার ফি এবং ব্যবহারিক ও কেন্দ্র ফি সহ পরিশোধ করে নিয়েছে শিক্ষা বোর্ড। তবুও একি শিক্ষার্থীর কাছ থেকে কেন্দ্র ও ব্যবহারিক ফি পুনরায় আদায় করছে বিদ্যালয়ের শিক্ষকগণ। অনেক শিক্ষার্থী বলেন আমার পক্ষে প্রতি সাবজেক্টে ২০০ কিম্বা ১৫০ টাকা করে দেওয়া সম্ভব না কিন্তু স্যার বলছেন টাকা না দিলে পরীক্ষার খাতায় স্বাক্ষর করবেন না। এমন অমানবিক পরিস্থিতিতে উদ্বিগ্নতায় রয়েছে অনেক শিক্ষার্থী ও অভিভাবকগণ বলে জানা যায়। এই বিষয়ে সরিষাবাড়ী পরীক্ষা কেন্দ্র সচিব ও আরডিএম পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ নজরুল ইসলামের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, প্রেকটিক্যাল পরীক্ষার ফি সরকারী ভাবে প্রতি সাবজেক্ট ১০ টাকা করে নির্ধারিত। আমি নিচ্ছি ৫০ টাকা। এখানে অন্যান্য কিছু খরচা রয়েছে বলে। কিন্তু অন্য বিদ্যালয়ে কত নিচ্ছে বা কত নিবে এটা তাদের অাভ্যন্তরীণ বিষয়। এ বিষয়ে মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ মোজ্জামেল হোসেনের কাছে  জানতে চাইলে তিনি বলেন, এটা অমানবিক অনৈতিকতার পরিপন্থী। শিক্ষাঙ্গণের শিক্ষকদের লোভনীয় চিন্তাচেতনা পরিহার করা বাঞ্ছনীয়।