(দিনাজপুর২৪.কম) আগামী ৩০ জুনের মধ্যে অটোমোবাইল ওয়ার্কসপের স্থান ও স্থাপনা ভাড়ার উপর প্রস্তাবিত ১৫ শতাংশ ভ্যাট প্রত্যাহারের দাবি করেছে বাংলাদেশ অটোমোবইল ওয়ার্কসপ মালিক সমিতি। একই সঙ্গে এ সময়ের মধ্যে ভ্যাট প্রত্যাহার না করলে দেশব্যাপী ওয়ার্কসপ বন্ধের হুমকি দিয়েছে সংগঠনটি।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর সেগুনবাগিচায় ঢাকা রিপোর্টাস ইউনিটিতে (ডিআরউ) সম্প্রসারিত মিলনায়তনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ খাতের ব্যবসায়ী নেতারা এসব কথা বলেন।

সমিতির মহাসচিব মো. জাহাঙ্গির আলমের সঞ্চালনায় সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য দেন- সংগঠনটির উপদেষ্টা এম বেলায়েত হোসাইন ও ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআইয়ের পরিচালক হাফেজ হারুনুর রশিদ। এতে সভাপতিত্ব করেন সমিতির সভাপতি মো. আরিফুর রহমান মিনা।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, ২০১৭-১৮ অর্থবছরের জাতীয় বাজেটে অটোমোবইল শিল্পে প্রস্তাবিত ১৫ শতাংশ ভ্যাটের পরিবর্তে শুধুমাত্র সার্ভিস চার্জের উপর সাড়ে ৪ শতাংশ মুসক (মূল্য সংযোজন কর) আরোপ এবং স্থান ও স্থাপনা ভাড়ার উপর ১৫ শতাংশ ভ্যাট প্রত্যাহারের দাবি জানাচ্ছি।

সমিতির প্রধান উপদেষ্টা বেলায়েত হোসাইন বলেন, অর্থমন্ত্রীর প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি-আপনি এমন কাজ করবেন না, যা সরকারের ক্ষতি হয়। প্রধানমন্ত্রীকে অনুরোধ করছি, আপনি ব্যবসায়ীদের এ যৌক্তিক দাবি পর্যালোচনা করে সমাধান দিন। ব্যবসায়ীরা আন্দোলন চায় না, এর সঠিক সমাধান চায়।

এফবিসিসিআই পরিচালক হাফেজ হারুনুর রশিদ বলেন, দেশ পরিচালনায় যে ব্যয় তার প্রধান অংশ ব্যবসায়ীদের থেকে আসে, ব্যবসায়ীরা কখনও বলেনি সরকারকে ভ্যাট বা ট্যাক্স দেবে না। কিন্তু তা যেন সহনীয় পর্যায়ে থাকে।

`এবারের বাজেটে দেখা গেছে, অর্থমন্ত্রী কর আওতা না বাড়িয়ে সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষ (ওয়ার্কসপ) মালিকদের দোকান ভাড়ার উপর ১৫ শতাংশ ভ্যাট বসিয়ে দিয়েছে। অন্যদিকে শুকরের মাংসকে ভ্যাট মুক্ত করেছেন। তাই কর্তৃপক্ষের উদ্দেশ্যে বলছি, আগামী ৩০ জুন পর্যন্ত ব্যবসায়ীরা দাবি পূরণের অপেক্ষা করবে, কোনো ব্যবস্থা না নিলে এরপর থেকে দেশব্যাপী কঠোর আন্দোলনের ডাক দেবে।`

ট্যাক্সের বিষয়ে সমিতির সভাপতি আরিফুর রহমান মিনা বলেন, অন্যান্য শিল্প খাতে আয় করের কয়েকটা স্তর থাকলেও আমাদের (অটমোবইলে) কোনো স্তর নেই। ১০০ টাকার কাজ করলে সরকারকে ৬ টাকা দিতে হবে। এ কেমন বিচার। তাই ট্যাক্স বৈষম্য থেকে আমাদের মুক্তি দিতে হবে।

আগামী ৩০ জুনের মধ্যে অটোমোবাইল ওয়ার্কসপের স্থান ও স্থাপনা ভাড়ার উপর প্রস্তাবিত ১৫ শতাংশ ভ্যাট প্রত্যাহারের দাবি করেছে বাংলাদেশ অটোমোবইল ওয়ার্কসপ মালিক সমিতি। একই সঙ্গে এ সময়ের মধ্যে ভ্যাট প্রত্যাহার না করলে দেশব্যাপী ওয়ার্কসপ বন্ধের হুমকি দিয়েছে সংগঠনটি।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর সেগুনবাগিচায় ঢাকা রিপোর্টাস ইউনিটিতে (ডিআরউ) সম্প্রসারিত মিলনায়তনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ খাতের ব্যবসায়ী নেতারা এসব কথা বলেন।

সমিতির মহাসচিব মো. জাহাঙ্গির আলমের সঞ্চালনায় সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য দেন- সংগঠনটির উপদেষ্টা এম বেলায়েত হোসাইন ও ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআইয়ের পরিচালক হাফেজ হারুনুর রশিদ। এতে সভাপতিত্ব করেন সমিতির সভাপতি মো. আরিফুর রহমান মিনা।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, ২০১৭-১৮ অর্থবছরের জাতীয় বাজেটে অটোমোবইল শিল্পে প্রস্তাবিত ১৫ শতাংশ ভ্যাটের পরিবর্তে শুধুমাত্র সার্ভিস চার্জের উপর সাড়ে ৪ শতাংশ মুসক (মূল্য সংযোজন কর) আরোপ এবং স্থান ও স্থাপনা ভাড়ার উপর ১৫ শতাংশ ভ্যাট প্রত্যাহারের দাবি জানাচ্ছি।

সমিতির প্রধান উপদেষ্টা বেলায়েত হোসাইন বলেন, অর্থমন্ত্রীর প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি-আপনি এমন কাজ করবেন না, যা সরকারের ক্ষতি হয়। প্রধানমন্ত্রীকে অনুরোধ করছি, আপনি ব্যবসায়ীদের এ যৌক্তিক দাবি পর্যালোচনা করে সমাধান দিন। ব্যবসায়ীরা আন্দোলন চায় না, এর সঠিক সমাধান চায়।

এফবিসিসিআই পরিচালক হাফেজ হারুনুর রশিদ বলেন, দেশ পরিচালনায় যে ব্যয় তার প্রধান অংশ ব্যবসায়ীদের থেকে আসে, ব্যবসায়ীরা কখনও বলেনি সরকারকে ভ্যাট বা ট্যাক্স দেবে না। কিন্তু তা যেন সহনীয় পর্যায়ে থাকে।

`এবারের বাজেটে দেখা গেছে, অর্থমন্ত্রী কর আওতা না বাড়িয়ে সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষ (ওয়ার্কসপ) মালিকদের দোকান ভাড়ার উপর ১৫ শতাংশ ভ্যাট বসিয়ে দিয়েছে। অন্যদিকে শুকরের মাংসকে ভ্যাট মুক্ত করেছেন। তাই কর্তৃপক্ষের উদ্দেশ্যে বলছি, আগামী ৩০ জুন পর্যন্ত ব্যবসায়ীরা দাবি পূরণের অপেক্ষা করবে, কোনো ব্যবস্থা না নিলে এরপর থেকে দেশব্যাপী কঠোর আন্দোলনের ডাক দেবে।`

ট্যাক্সের বিষয়ে সমিতির সভাপতি আরিফুর রহমান মিনা বলেন, অন্যান্য শিল্প খাতে আয় করের কয়েকটা স্তর থাকলেও আমাদের (অটমোবইলে) কোনো স্তর নেই। ১০০ টাকার কাজ করলে সরকারকে ৬ টাকা দিতে হবে। এ কেমন বিচার। তাই ট্যাক্স বৈষম্য থেকে আমাদের মুক্তি দিতে হবে। -ডেস্ক