(দিনাজপুর২৪.কম) ইতালিয়ান ক্লাবগুলোর রক্ষণভাগ বিশ্বসেরা। চ্যাম্পিয়ন্স লীগে ২০১৬-১৭ মৌসুমের ইতালির ক্লাব জুভেন্টাসের মাঝমাঠকে বলা হচ্ছিল, দুই কোরিয়ার সীমান্ত রেখা। রক্ষণভাগকে বলা হচ্ছিল চীনের প্রাচীর। আর গোলরক্ষক জিয়ানলুইজি বুফন ছিলেন সীসা ঢালা কঠিন প্রাচীর। জুভেন্টাসের জাল ভেদ করতে হলে প্রথমেই বিশ্বের সবচেয়ে নিñিদ্র কোরিয়া সীমান্ত পার হতে হবে। তারপর চীনের প্রাচীর। আর সর্বশেষ থাকে বুফনের সীসা ঢালা প্রাচীর। এমন কথার সত্যতা পাওয়া যায় পুরো আসলের ফলাফল ও গোলের হিসাবের দিকে তাকালে। এবার একমাত্র অপরাজিত দল হিসেবে চ্যাম্পিয়ন্স লীগের ফাইনালে ওঠে তারা। ফাইনালের আগে পুরো আসরে ১২ ম্যাচে হজম করে মাত্র ৩ গোল! গ্রুপর্বে লিঁও ও সেভিয়ার কাছে একটি করে গোল হজমের পর সেমিফাইনালের ফিরতি লেগে মোনাকোর কাছে খায় এক গোল। নকআউটপর্বে সেটা ছিল তাদের একমাত্র গোল হজম। কোয়ার্টার ফাইনালে দুই লেগের ১৮০ মিনিটে বার্সেলোনার মতো দল বুফনকে পরাস্ত করতে পারেনি। যে দলে রয়েছে ‘এমএনএস’খ্যাত লিওনেল মেসি, নেইমার ও লুইস সুয়ারেজের মতো ফরোয়ার্ডরা। উল্টো বার্সেলোনা হজম করে ৩ গোল। এমন অপ্রতিরোধ্য চেহারা নিয়ে ফাইনালে ওঠে জুভেন্টাস। কিন্তু শিরোপার লড়াইয়ে জুভেন্টাসের এসব প্রতিরোধ কোনো কাজেই এলো না। রিয়াল মাদ্রিদের বিপক্ষে এক ম্যাচেই হজম করলো চার গোল। হারলো ৪-১ গোলের ব্যবধানে। ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোকে কোনোভাবেই রুখতে পারলেন না বুফন। ইতালিয়ান এ গোলরক্ষকের বিপক্ষে ফের জোড়া গোল করলেন রোনালদো। এমন কি এদিন রোনালদোর প্রথম শটেই পরাস্ত হন বুফন। কার্ডিফের ফাইনালে প্রথমার্ধে দারুণ খেলে জুভেন্টাস। ৪৫ মিনিটে রিয়ালের গোলমুখে নটার্গেটে তারা ৪ শট নেয়। এরমদ্যে একটি গোলে পরিণত করেন মারিও মানজুকিচ। অন্যদিকে জুভেন্টাসের গোলমুখে অনটার্গেটে মাত্র একটি শট নিতে পারে রিয়াল। সেই একমাত্র শটে গোল করেন রোনালদো। -ডেস্ক