এস.এন.আকাশ, সম্পাদক (দিনাজপুর২৪.কম) দিনাজপুরবাসীর গর্ব দিনাজপুরের পুলিশ সুপার মোঃ হামিদুল আলম। তাঁর সাহসী পদক্ষেপ রাজনৈতিক প্রেক্ষপট তথাপি সব কিছু উপেক্ষা করে তিনি বন্ধ করতে সক্ষম হয়েছেন মাদক, জুয়া সহ অন্যান্য অসামাজিক অপরাধগুলো। মাদক ব্যবসায়ীরা তাদের ব্যবসার ধরণ পাল্টিয়েও কোন লাভ হয়নি। তিনি সফলতার সাথে সে সব ব্যবসায়ীদের কুপোকাত করে দিয়েছেন। বিশেষ করে, ষষ্টিতলা, হঠাৎপাড়া, লম্বাপাড়া সহ বিশেষ বিশেষ পয়েন্টে বন্ধ হয়ে গেছে চুয়ানি-গাঁজা ও ইয়াবার ব্যবসা। এতে করে দিনাজপুরবাসী পুলিশ সুপার হামিদুল আলমের প্রতি অত্যন্ত খুশি। মাদক বন্ধে আরও প্রশংসা কুড়িয়েছেন মাদক দ্রব্য অধিদপ্তর ও কোতয়ালী থানা পুলিশ।
দিনাজপুর পুলিশ সুপার দিনাজপুর২৪.কমকে জানান, আমি মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টরারেন্স ঘোষণা করেছি। তিনি আরও বলেন, হয় মাদক থাকবে নইলে আমি থাকবো। ইতোমধ্যে মাদক ব্যবসায়ীরা আমার অভিযানে ভীত হয়ে স্বেচ্ছায় ধরা দিয়ে অন্য কর্ম বেছে নিয়েছে। সদা হাস্যোজ্জল পুলিশ সুপার হামিদুল আলম শুধু মাদক বন্ধ করে বসে থাকেননি। মিশে গেছেন দিনাজপুরবাসীর সাথে। মাঠে-ঘাটে সর্বত্র তিনি সাধারণ মানুষের পাশে এসে কথা বলেছেন, তাদের সমস্যা চিহ্নিত করে কাজ করে যাচ্ছেন।
যানযাট নিরিসরে দিনাজপুর পুলিশ সুপারের ভূমিকা : গত ঈদে যেভাবে যানজট লেগে ছিল এবার তা তুলনায় তা কম। দিনাজপুর পুলিশ সুপার হামিদুল আলমের তত্ত্বাবধায়নে পবিত্র ঈদে মানুষের যেন কষ্ট না হয় তিনি শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে বসিয়েছেন পুলিশ প্রশাসন। এতে করে মানুষ তীব্র যানজটের ভোগান্তি থেকে মুক্তি পেয়েছে। শহরে কমে গেছে পকেটমার, ছিনতাইকারীর সংখ্যা। শুধু শহরেই নয়, ষষ্টিতলা, বালুয়াডাঙ্গা, সুইহারী, ফুলবাড়ি বাসষ্ট্রান্ড, বালুবাড়ি, মহারাজার মোড়, লিলিমোড়, সহ শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে রয়েছে পুলিশি চেকপোস্ট ও টহল পুলিশ। সাদা পোশাকেও কাজ করছে গোয়েন্দা পুলিশ। এতে করে সাধারণ মানুষের মাঝে স্বচ্ছি বিরাজ করছে।
দিনাজপুরবাসী দিনাজপুর পুলিশ সুপার সহ, সকলকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেছেন।
উল্লেখ্য যে, দিনাজপুর পুলিশ সুপার হামিদুল আলম খুব অল্প সময়ের মধ্যে তাঁর বীরত্বের কাজের জন্যই রংপুর বিভাগে শ্রেষ্ঠ পুলিশ সুপার নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি সাধারণ মানুষকে ভালোবাসেন নিজের মত করে। সুধী মহল মনে করেন, এ কারণে অল্প দিনে দিনাজপুর পুলিশ সুপার দিনাজপুরে ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি করে মানুষের মনের মাঝে প্রবেশ করেছেন। যা এর আগে কখনও পুলিশ প্রশাসনের মাঝে তা পরিলক্ষিত হয়নি। মাদক নির্মুলে তিনি সকলের সহযোগিতা চেয়েছেন। তিনি দিনাজপুর শহরকে মাদকমুক্ত ও অপরাধ মুক্ত রাখতে সকলের প্রতি আহবান জানান।