আকতার হোসেন বকুল (দিনাজপুর২৪.কম) করোনার কারণে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে আমদানী-রপ্তানী দুইমাস বন্ধ থাকার পর অবশেষে ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি শুরু হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার সকালে ভারতের নাসিক থেকে পেঁয়াজের প্রথম একটি বড় চালান নিয়ে ভারতীয় মালবাহী ট্রেনটি হিলি রেলস্টেশন আসে। এরপর ঢাকা সহ দেশের বিভিন্ন স্থানে আমদানীকৃত পেঁয়াজ গুলো পাঠানো হয়।

হিলি স্থলবন্দরের আমদানীকারক শহীদুল ইসলাম শহীদ জানান, করোনা পরিস্থিতির কারণে দেশে পেঁয়াজের সংকট দেখা দেয় এবং বাজারে দাম বাড়তে থাকে। এ অবস্থায় ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানীর জন্য এলসি করা হয়। এরপর নাসিক থেকে ৪২টি বগিতে ১৬০০ মেট্রিকটন পেঁয়াজ নিয়ে বাংলাদেশে রওনা দেয়। পেঁয়াজ বোঝাই মালবাহী ট্রেনটি দিনাজপুরের বিরল রেলবন্দর দিয়ে দেশে প্রবেশ করে। পেঁয়াজের চালানটির কার্যক্রম শেষ আজ সকালে হিলি রেলস্টেশনে এসে পৌছাই। এসময় মালবাহী ট্রেন থেকে দ্রুত পেঁয়াজ খালাস করে নেওয়া হয়। এরপর বাজারে দ্রুত সরবরাহের লক্ষ্যে আমদানী করা পেঁয়াজ ঢাকা সহ দেশের বিভিন্ন স্থানে পাঠানো হয়। হিলি রেলওয়ে স্টেশন মাষ্টার চপল কুমার বলেন, ভারতীয় ৪২টি বগিতে করে ১৬০০ মেট্রিকটন পেঁয়াজসহ ট্রিন হিলি স্টেশনে পৌচ্ছে। অনেক দিন হিলি পোর্ট বন্ধ থাকায় কুলি-শ্রমিকরাও বসে ছিল। আজ ট্রেন যোগে পেঁয়াজ আসায় তারা কাজে লাগছে এবং তারা বেশ খুশি।
আমদানীকারক শহীদুল ইসলাম শহীদ বলেন, লকডাউনের কারনে পেঁয়াজ আমদানী বন্ধ থাকায় বাজারে এর প্রভাব পড়েছিল। সরকারকে সহযোগিতা করার জন্য অনেক কষ্ট করে আমরা ট্রেন যোগেই পেঁয়াজ আমদানী করছি বলেন, জানান শহীদ।