(দিনাজপুর২৪.কম) ২০১২ সালে লিবিয়ার বেনগাজিতে মার্কিন কনসুলেটে হামলায় নিহত হন শন স্মিথ ও টায়রন উডস নামের দুই মার্কিন  সেনা। সেই মৃত্যুর জন্য তৎকালীন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারি ক্লিনটনকে দায়ী করে কয়েক ঘণ্টা আগে মামলা করেছেন ওই দুই সেনার পরিবার। খবর বিবিসির। তারা বলছেন, হিলারি ক্লিনটন সেসময় তার ব্যক্তিগত ইমেইল ব্যাবহার করে রাষ্ট্রীয় গোপন তথ্য আদান প্রদান করেছেন। স্মিথ ও উডসের পরিবার মনে করছে, অনিরাপদ ব্যক্তিগত ইমেইল বার্তা থেকে সেসময় মার্কিন কর্মকর্তাদের অবস্থান হয়ত ফাঁস হয়ে গিয়েছিলো।

দুই পরিবারের পক্ষে মামলাটি করেছে ফ্রিডম ওয়াচ গ্রুপ নামে একটি রক্ষণশীল গোষ্ঠী। বেনগাজি কনসুলেটে ওই হামলা সম্পর্কে হিলারি ক্লিনটন মানহানিকর মন্তব্য করেছেন বলেও মামলায় উল্লেখ করা হয়েছে।

এর আগে গত মাসেই মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআইয়ের পরিচালক জেমস কমি ঘোষণা করেছিলেন, হিলারি ক্লিনটনের ব্যক্তিগত ইমেইল হ্যাক হয়ে থাকতে পারে। সেটা নিয়ে করা একটি তদন্ত কমিটি অবশ্য বলেছে, হিলারি ক্লিনটন কূটনৈতিক নিয়ম নীতি লঙ্ঘন করেননি। তবে হিলারি ক্লিনটনের নির্বাচনী প্রচারণায় এই ইস্যুটি একটি বড় সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে।

মার্কিন কনসুলেটে ওই হামলা চালিয়েছিল ইসলামিক স্টেট গোষ্ঠী যাতে, আরও নিহত হয়েছিলেন তখনকার মার্কিন রাষ্ট্রদূত ক্রিস্টোফার স্টিভেন্স। অবশ্য তার বোন এ্যান স্টিভেন্স নিউইয়র্ক টাইমসে দেয়া এক সাক্ষাতকারে হিলারি ক্লিনটনের পক্ষে কথা বলেছেন।

এদিকে, হিলারি ক্লিনটনের নির্বাচনী ক্যাম্পেইন টিম তার বিরুদ্ধে আনা সব অভিযোগ অস্বীকার করেছে। -ডেস্ক