(দিনাজপুর২৪.কম) বহুল প্রত্যাশিত স্বপ্নের মেট্রোরেল পথ অবশেষে দৃশ্যমান হয়েছে। উত্তরার দিয়াবাড়ি এলাকায় বসেছে প্রথম স্প্যান। এখান থেকেই শুরু হল মেট্রোরেলের যাত্রাপথ। থামবে বাণিজ্যিক এলাকা মতিঝিলে। উত্তরায় তৃতীয় ফেজে মাটি থেকে ১০ মিটার উঁচুতে দুটি খুঁটিতে এই স্প্যানটি বসানো হয়েছে। ৩৭৭টি পিলারে ওপর এরকম ৩৭৬টি স্প্যান বসে বিস্তৃত হবে ২০ কিলোমিটারের মেট্রোরেল। মেট্রোরেল বাস্তবায়নকারী ঢাকা ম্যাস ট্রানজিট কোম্পানি লিমিটেড (ডিএমটিসিএল) -এর চেয়ারম্যান এম এ এন ছিদ্দিক জানান, ২০১৯-এ মেট্রোরেলের প্রথম ধাপ উত্তরা আগারগাঁও-এর কাজ শেষ হবে। তখনই ৫ সেট ট্রেন দিয়ে মেট্রোরেলের এ রুট চালু হবে। মেট্রোরেলের এ পুরো পথটাই হবে এলিভেটেড। উড়ালপথে ১০০ কিলোমিটার গতিতে চলবে মেট্রোরেল।
২০১৯ সালে ৫ সেট ট্রেন দিয়ে উত্তরা-আগারগাঁও রুটে যাত্রা শুরু করবে এই যানজটহীন দ্রুততম যান।ডিএমটিসিএল জানায়, ৮টি প্যাকেজের মেট্রোরেল (এমআরটি লাইন-৬) প্রকল্পের উত্তরা অংশে যে কাজ হচ্ছে এটি ৩ নম্বর প্যাকেজ। এর অধীনে উত্তরা থেকে পল্লবী পর্যন্ত প্রায় ৬ কিলোমিটারের কাজ চলছে।
প্রথম কাজ হিসেবে উত্তরায় দু’টি পিলারের সম্পূর্ণ কাজ শেষে একটি স্প্যান তোলা হয়েছে। এখান থেকে পল্লবী পর্যন্ত মেট্রোরেলের ৪টি স্টেশন পড়বে। এগুলো হলো- উত্তরা নর্থ, উত্তরা সেন্টার, উত্তরা সাউথ এবং পল্লবী। এরপর পল্লবী থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত আরও ৬ কিলোমিটারে ৫টি স্টেশন থাকবে। এখানে চলছে পাইলিংয়ের কাজ। রাস্তার মাঝ বরাবর ব্যারিয়ার দিয়ে পাইল ড্রাইভ কাজ চালানো হচ্ছে। মেট্রোরেল প্রকল্প পরিচালক আফতাব আহমেদ জানান, পিলার ও গাডার তৈরি চলছে। একটি স্প্যান পুরোপুরি প্রস্তুত করে মেট্রোরেলের পুরো অবকাঠামোর একটি ধারণা উপস্থাপন করা হবে।
ডিএমটিসিএল প্রকল্প অনুযায়ী, প্যাকেজ ৩ ও ৪ এর কাজ করছে ইটালিয়ান-থাই ডেভেলপমেন্ট পাবলিক কোম্পানি লিমিটেড (ইটাল-থাই) এবং চীনের প্রতিষ্ঠান সিনোহাইড্রো করপোরেশন লিমিটেড। প্যাকেজ-২ এর আওতায় উত্তরায় ডিপো নির্মাণ করছে ইটাল-থাই ও সিনোহাইড্রো। আর প্যাকেজ-১ এর আওতায় ডিপো এলাকায় ল্যান্ড ডেভেলপমেন্টের কাজ করা হচ্ছে। আগারগাঁও থেকে মতিঝিল পর্যন্ত মেট্রোরেল প্রকল্পের প্যাকেজ-৫ ও ৬ এর কাজ। প্যাকেজ ৭ এ হলো মেট্রোরেলের বৈদ্যুতিক-যান্ত্রিক সব কাজ। এর মূল্যায়ন কার্যক্রম চলছে।
৮ নম্বর প্যাকেজে রেলকোচ ও ট্র্যাক পরিচালনা রক্ষণাবেক্ষণ কাজ। ২০১৯ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে ৫ সেট ট্রেন উত্তরা-আগারগাঁও রুটে চালানো শুরু হবে। ডিসেম্বর ২০২১ এর মধ্যে বাকি ১৯ সেট ট্রেন এবং ডিপো যন্ত্রাংশ সরবরাহ শেষ হবে। কোচ আমদানি করা হবে জাপানের গাড়ি প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান কাওয়াসাকি-মিৎসুবিশি থেকে। -ডেস্ক