(দিনাজপুর২৪.কম)রাষ্ট্রায়ত্ত সোনালী ব্যাংক লিমিটেডে’র তানোর শাখা থেকে প্রায় কোটি টাকা আত্মসাতের ঘটনা ধরা পড়েছে। প্রাথমিকভাবে ব্যাংকের ওই শাখার তথ্যপ্রযুক্তি (আইটি) শাখার কর্মকর্তা নাজির হোসেনের বিরুদ্ধে এই অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ আনা হয়েছে। তিনি ১৫ দিনের ছুটির দরখাস্ত দিয়ে আত্মগোপন করেছেন।  বিষয়টি নিশ্চিত করেছে ব্যাংকের একাধিক সূত্র।

জানা গেছে, প্রায় তিনবছর ধরে একই শাখায় আইটি কর্মকর্তার দায়িত্ব পালন করছিলেন নাজির হোসেন। এ সময়ের মধ্যে তিনি ওই শাখার অভ্যন্তরীণ তহবিলের হিসাব থেকে ওই টাকা আত্মসাত্ করেন। গত ২৪ মে থেকে চলমান নতুন অভ্যন্তরীণ নিরীক্ষায় প্রাথমিকভাবে টাকা আত্মসাতের এই তথ্য মিলেছে। তবে নিরীক্ষা এখনো শেষ না হওয়ায় অর্থের সুনির্দিষ্ট পরিমাণ ও জড়িতদের সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য পাওয়া যায়নি।
জানা গেছে, আইটি কর্মকর্তা নাজির হোসেনের বাড়ি রাজশাহী মহানগরীর বহরমপুর ব্যাংকপাড়ায়। ওই টাকায় তিনি সমপ্রতি মাসুদ নামের জনৈক ব্যক্তির সঙ্গে ঠিকাদারী ব্যবসা শুরু করেছেন। এছাড়া তিনি একটি ট্রাক ও একটি প্রাইভেট কারও কিনেছেন। বক্তব্য জানার জন্য অভিযুক্ত নাজির হোসেনের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি। তার ব্যক্তিগত মোবাইল ফোন বন্ধ পাওয়া গেছে।
এ ব্যাপারে ব্যাংকের শাখা ব্যবস্থাপক জিল্লুর রহমান সাংবাদিকদের বলেন, ‘নিরীক্ষা এখনো শেষ হয়নি। তাই আত্মসাতকৃত টাকার সুনির্দিষ্ট পরিমাণ বলা যাচ্ছে না। নিরীক্ষা শেষে প্রতিবেদন প্রাপ্তির পর জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

এদিকে তানোর শাখার সিনিয়র অফিসার খালেদ প্রায় ৪২ লাখ টাকা ব্যাংকে ফেরত দিয়েছেন। ব্যাংক কর্তৃপক্ষ খালেদকে সাময়িক বরখাস্ত করেছে।(ডেস্ক)