(দিনাজপুর২৪.কম)  হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর মোঃ রুহুল আমিন বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে আমরা পাকিস্তানকে পরাজিত করে একটি স্বাধীন জাতি হিসেবে পৃথিবীর মানচিত্রে অবির্ভূত হয়েছিলাম। কিন্তু একটি যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশ যখন সামনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে ঠিক তখনই ১৯৭৫ সালের ১৫ আগষ্ট গভীর রাতে সেনা বাহিনীর কিছু বিপদগামী ও ষড়যন্ত্রকারী চক্র হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী, বাংলার অবিসংবাদিত নেতা বঙ্গবন্ধুসহ তার পরিবারের সদস্যদের নির্মমভাবে হত্যা করে বাঙালির হাজার বছরের স্বাপ্নের সোনার বাংলা নির্মাণের পথ রোধ করে দেয়। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ছিল অসম্প্রদায়িক ও ধর্ম নিরপেক্ষ সুখি সমৃদ্ধ দেশ গড়ার। পরবর্তীতে বাংলার মাটিতে অনেক কিছু হয়েছে, কিন্তু বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা তিমিরেই রয়েছিল। বর্তমানে তারই সন্তান জননেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত ধরে সেই সোনার বাংলা নির্মানের কাজ চলছে।
গতকাল দিনাজপুর মেডিকেল কলেজে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ শাখা আয়োজিত জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব স্মরণে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে হাবিপ্রবির উপাচার্য প্রফেসর মোঃ রুহুল আমিন এ কথা বলেন।
তিনি আরো বলেন, বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব বঙ্গবন্ধুর পাশে না থাকলে হয়ত বাংলাদেশে ইতিহাস ভিন্ন হতো। তখন আওয়ামীলীগ এত বড় পরিবার ছিলনা। সামরিক শাসক আইয়ুব খানের যাঁতাকল ছিল। রাজনীতি করা ও এর চিন্তা করাটাই ছিল দূরূহ ব্যাপার। সেই পরিবেশে বেগম মুজিব বঙ্গবন্ধুর সব কাজে সহযোগিতা করেছেন এবং সাহস জুগিয়েছেন। সেই পরিবেশ থেকেও সব কিছুর পাশাপাশি তিনি ছেলে-মেয়েদের মানুষ করেছেন। তাদের লেখাপড়া শিখিয়েছেন। বঙ্গবন্ধু জেলে ছিলেন বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব ছিলেন তার সন্তানদের অভিভাবক। তিনি ছেলে-মেয়েদের মায়ের প্রয়োজন তো মিটিয়েছেনই, আবার বাবার দায়িত্ব পূরণ করেছেন।
দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি ডাঃ আশফাকুর রহমান তুষার এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন দিনাজপুর মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ডাঃ কামরুল আহসান, বিএমএ দিনাজপুর শাখার সাধারণ সম্পাদক ডাঃ গোপিনাথ বসাক, বঙ্গবন্ধু পরিষদ দিনাজপুর জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক মোঃ শফিকুল ইসলাম, দিনাজপুর মেডিকেল কলেজের উপাধ্যাক্ষ ডাঃ কান্তা রায় রিমি, বঙ্গবন্ধু শিক্ষা ও গবেষনা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক শিশু বিশেষজ্ঞ ডাঃ মোঃ মশিউর রহমান, দিনাজপুর মেডিকেল কলেজের সহকারী অধ্যাপক ডাঃ সৈয়দ নাদির হোসেন, সহকারী অধ্যাপক নুরল ইসলাম, দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ডাঃ মির্জা শরিফুল ইসলাম ও জেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহবায়ক সাদিকুর রহমান বিপ্লব।
অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ শাখার সাধারণ সম্পাদক এস.এম আসফিকার শামস্।