(দিনাজপুর২৪.কম) সকালের সূর্য দেখেই নাকি বোঝা যায় দিনটি কেমন যাবে। বহুল প্রচলিত প্রবাদটিকে শেষ পর্যন্ত ভুল প্রমাণ করে দুই ম্যাচ হাতে রেখে বুন্দেসলিগার শিরোপা ঘরে তুলল বায়ার্ন মিউনিখ। মঙ্গলবার রাতে ভের্ডার ব্রেমেনকে ১-০ হারিয়ে টানা অষ্টম আর ৩০তমবারের মতো লীগে শ্রেষ্ঠত্ব দেখাল বাভারিয়ানরা। এই শিরোপা জয়ে অসাধারণ এক রেকর্ডেও ভাগ বসিয়েছে জার্মানির সফলতম দলটি। জার্মানিতে একটানা লীগ জয়ের নতুন রেকর্ড এখন তাদেরই। ইউরোপের শীর্ষ পাঁচ লীগে একটানা ৮ শিরোপা জয়ের সর্বোচ্চ রেকর্ডটি ছিল জুভেন্টাসের। এখন তাতে ভাগ বসিয়েছে বায়ার্ন। অথচ মৌসুমের শুরুটা তারা করেছিল ‘নড়বড়ে’। গত ডিসেম্বরে তো পয়েন্ট তালিকার সপ্তম স্থানেও নেমে গিয়েছিল।

ব্যর্থতার দায়ে চাকরি হারান তখনকার কোচ নিকো কোভাচ। সহকারি কোচ হান্সি ফ্লিককে দায়িত্ব নেওয়ার পর ঘুরে দাঁড়ায় বায়ার্ন। ফেব্রুয়ারি গড়াতে নিজেদের পছন্দের শীর্ষস্থান দখলে নিল তারা। এরপর তো পৃথিবীই বদলে গেল। বুন্দেসলিগা ফেরার পর অবশ্য বায়ার্ন আর বদলালো না। সবশেষ বায়ার্ন হেরেছিল গত বছরের ৭ই ডিসেম্বর; বরুশিয়া মনশেনগ্লাডবাখের মাঠে ২-১ গোলে। এরপর টানা ১৮ ম্যাচ অপরাজিত থেকে শিরোপা জিতল তারা; এর মধ্যে ড্র মাত্র একটি। আর শেষ ১১ রাউন্ডে টানা জয়।

বায়ার্নের শিরোপা জয়ের আনন্দ অবশ্য আলফোন্সো ডেভিসের জন্য ঠিক মনমতো হয়নি। ৭৯তম মিনিটে দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখে মাঠ ছাড়তে হয়েছে বায়ার্নের তরুণ লেফটব্যাককে। ভের্ডার ব্রেমেনের মাঠে বায়ার্নের জয়সূচক গোলটি আসে রবার্ট লেভানদোস্কির পা থেকে। ৪৩তম মিনিটে জেরোমে বোয়াটেংয়ের উঁচু করে বাড়ানো বল ডি-বক্সে বুক দিয়ে নামিয়ে ডান পায়ের কোনাকুনি শটে গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন তিনি। লীগে সর্বোচ্চ গোলদাতার এটি ৩১তম গোল। সব প্রতিযোগিতা মিলে ৪০ ম্যাচে ৪৬টি। চলমান মৌসুমে এই পোলিশ স্ট্রাইকারই রয়েছেন ইউরোপিয়ান গোল্ডেন বুট জয়ের দৌড়ে। তার চেয়ে বেশি গোল যে নেই আর কারো।-ডেস্ক