(দিনাজপুর২৪.কম) সেভ দ্য চিলড্রেন ও ব্র্যাক এর সহযোগিতায় যুগান্তর সমাজ উন্নয়ন সংস্থা (জেএসইউএস) বাস্তবায়িত “সেকেন্ড চান্স এডুকেশন” প্রকল্পের “আশার আলো শিশু শিখন কেন্দ্র” পরিদর্শন কালে এ মন্তব্য করেন কোতোয়ালী থানা র্নিবাহী অফিসার শর্মীষ্ঠা রাণী মজুমদার।তিনি আরো বলেন বর্তমান সরকার শিশুদের কল্যানে নানামুখী পদক্ষেপ গ্রহনের মাধমে শিক্ষাকে সর্বচ্ছ পর্যায়ে গুরুত্ব দিয়ে শিশুদের জন্য বাধ্যতা মূলক প্রাথমিক শিক্ষা নিশ্চিত করেছে। এছাড়া সরকার সেকেন্ডচান্স এডুকেশন প্রকল্পটি প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় ও ব্র্যাক এর সহায়তায় উন্নয়ন সহযোগী সংস্থার মাধ্যমে স্কুল থেকে ঝড়ে পড়া রোধ ও শিশুদের স্কুলমুখী করার জন্য যে প্রচেষ্ঠা অব্যাহত রেখেছে তা অত্যান্ত প্রশংসার দাবিদার । আজ জেএসইউএস কর্তৃক পরিচালিত “আশার আলো শিশু শিখন কেন্দ্র” পরিদর্শনের মাধ্যমে তার সত্যতার প্রমান পেলাম । পরিদর্শন কালিন সময় শিক্ষকের পাঠদানের কৌশল, পদ্ধতি, ও শিশুদের শিক্ষা সংক্রান্ত বিভিন্ন বিষয়ে খোঁজ খবর নেন। এ সময় শিশুরা বিভিন্ন সৃজনশীল কর্মকান্ডের মধ্যেমে তাদের প্রতিভা গুলি তুলে ধরার চেষ্টা করেন। এ সময় তিনি শিশুদের অগ্রগতি দেখে প্রশংসা ও প্রকল্পের সফলতা কামনা করেন। অন্যন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন লামা বাজার সরকারি প্রধান শিক্ষক ঝর্ণা সেন গুপ্তা,বলুয়ারদিঘী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সুপ্রীতি সেন,জেএসইউএস প্রোগ্রাম ম্যানেজার মুনজিলুর রহমান,প্রোগ্রাম অফিসার সালাউদ্দিনশিক্ষক জান্নাতুল ফেরদৌস প্রমূখ।