(দিনাজপুর২৪.কম) সিরিয়ার পূর্ব ঘুটার বিদ্রোহী অধ্যুষিত দৌমা শহরে ‘বিষাক্ত গ্যাস আক্রমণে’ অন্তত ৭০ জন নিহত হয়েছে।সেখানে কর্মরত উদ্ধারকর্মী ও চিকিৎসকদের বরাত দিয়ে রোববার সকালে বিবিসির এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

স্বেচ্ছাসেবী উদ্ধারকারী সংস্থা ‘হোয়াইট হেলমেট’ একটি বেজমেন্টে মরদেহের ছবিসহ একটি টুইট করে জানিয়েছে, মৃতের সংখ্যা বাড়তে পারে। তবে এই তথ্য অন্য কোনো উৎস থেকে স্বাধীনভাবে যাচাই করা সম্ভব হয়নি।সিরিয়া সরকার অবশ্য রাসায়নিক হামলার এই অভিযোগকে ‘অতিরঞ্জন’ বলে দাবি করেছে।

এর আগে করা এক টুইটে হোয়াইট হেলমেট দাবি করেছিল, মৃতের সংখ্যা ১৫০ জন। পরে ওই টুইটটি মুছে ফেলা হয়।যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তর বলেছে, তারা সাম্প্রতিক আক্রমণ সম্পর্কে ‘খুবই পীড়াদায়ক’ তথ্য পাচ্ছে। তারা বলেছেন, রাসায়নিক হামলা ব্যবহার করা হয়ে থাকলে সিরিয়ার মিত্র হিসেবে যুদ্ধ করা রাশিয়াকে দায়ী করা উচিৎ।

মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তর আরও বলেছে, ‘নিজেদের লোকদের ওপর রাসায়নিক অস্ত্র দিয়ে আক্রমণ করার ইতিহাস রয়েছে রাশিয়ার। অগণিত সিরিয়ানদের ওপর রাসায়নিক হামলা করার দায় নিতে হবে রাশিয়াকে।’সরকার বিরোধী ‘ঘুটা মিডিয়া সেন্টার’ টুইট করে জানিয়েছে, এক হাজারের বেশি মানুষ এই রাসায়নিক হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

তারা বলছে, একটি পিপের মধ্যে করে হেলিকপ্টার থেকে একটি বোমা ফেলা হয় সেখানে। ওই পিপেতে বিষাক্ত রাসায়নিক সারিন ছিল বলে দাবি করা হচ্ছে।পূর্ব ঘুটা অঞ্চলের একমাত্র বিদ্রোহী অধ্যূষিত শহর দৌমা বর্তমানে সরকারি বাহিনী অবরোধ করে রেখেছে।
সূ্ত্র-রয়টার্স