আব্দুর রহিম, সিরাজগঞ্জ (দিনাজপুর২৪.কম) সিরাজগঞ্জে বিয়ের প্রলোভনে এক কিশোরীকে (১৫) রাতভর গণধর্ষণ করা হয়েছে বলে প্রেমিক ও তার পাঁচ বন্ধুর বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে। গুরুতর অবস্থায় ওই কিশোরীকে সিরাজগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বুধবার রাতভর সদর উপজেলার ছোনগাছা ইউনিয়নের ভাটপিয়ারী যমুনা নদীর বালুচরে এ গণধষর্ণের ঘটনা ঘটে। বৃহস্পতিবার ভোরে স্থানীয়রা ধর্ষিতা কিশোরীকে উদ্ধার করে সিরাজগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। খবর পেয়ে সকালে পুলিশ হাসপাতাল ও ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন কিশোরী জানায়, পার-পাচিল গ্রামের গুটু খাঁর ছেলে রাসেলের সাথে মেয়েটির প্রেমের সম্পর্ক ছিল। বিয়ের কথা বলে রাসেল তাকে মোবাইল করে রাত আটটার দিকে বালু চরে ডেকে নিয়ে যায়। কিছুক্ষণ পরে রাসেল তার বন্ধু সোহেল, রাজ্জাক, নাজমুল ও নুরুসহ আরও পাঁচজনকে ফোন করে ডেকে নিয়ে আসে। এরপর রাতভর ছয়জন মিলে জোরপূর্বক তার উপর পাশবিক নির্যাতন চালায়।

ভোরে এলাকাবাসী ওই কিশোরীকে ভাটপিয়ারী বালুর চর থেকে উদ্ধার করে নিয়ে আসে।

সদর থানার উপ-পরিদর্শক নুরুল ইসলাম জানান, মেয়েটির উপর ছয়জন মিলে পাশবিক নির্যাতন করেছে। এ ঘটনায় কিশোরীর ভাই শহিদুল ইসলাম বাদী হয়ে ছয়জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন। প্রেমিকসহ অন্যান্য অভিযুক্তকে আটক করতে ওই এলাকায় পুলিশের অভিযান চলছে।
সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক ডা. আকরামুজ্জান জানান, মেয়েটিকে রক্তাক্ত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বর্তমানে সে কিছুটা সুস্থ। প্রাথমিক পরীক্ষায় ধর্ষণের আলামত পাওয়া গেছে।