(দিনাজপুর ২৪.কম) সিরাজগঞ্জে প্রাইভেটকার থেকে প্রায় দেড় কোটি টাকা উদ্ধার ঘটনায় পুলিশের বিশেষ শাখার এক কর্মকর্তাসহ ৭ জনের বিরুদ্ধে বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম থানায় এসআই আহসান হাবিব বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলার বাদী জানান, ঘটনার সঙ্গে সংশ্লিষ্টদের বিষয়ে নিশ্চিত হয়েই তাদের বিরুদ্ধে গত মঙ্গলবার এই মামলা দায়ের করা হয়েছে। যাদের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে তারা হলেন, ঢাকার এসবির এসআই ছানোয়ার হোসেন (৩৫), সিরাজগঞ্জ জেলা যুবদল সভাপতি আবু সাঈদ সুইট (৪৪), যুবদল কর্মী সেলিম আহম্মেদ (৩৫), কুদরত-ই-খোদা রাজিব (৩৬), হুমায়ুন কবির (৩৯), রাজশাহীর দুর্গাপুর থানার দেবীপুর গ্রামের খলিলুর রহমানের ছেলে আব্দুর রাজ্জাক (২৮) ও মুন্সীগঞ্জের গজারিয়া উপজেলার বাঁশগাঁও গ্রামের মৃত রফিকুল ইসলামের ছেলে প্রাইভেটকার চালক বাবু ওরফে যুবরাজ (২৭)। গ্রেফতারকৃত ২ জনকে আজ বৃহস্পতিবার আদালতে হাজির করে ৫দিনের  রিমান্ড চাইলে বিজ্ঞ আদালত তাদের ২ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।
উল্লেখ্য গত মঙ্গলবার দুপুরে বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিমপাড় গোল চত্বর এলাকায় উত্তরবঙ্গ থেকে ঢাকাগামী একটি প্রাইভেটকার থামানোর সিগন্যাল দেয় পুলিশ। এসময় চালক পুলিশের সিগন্যাল অমান্য করে সেতুর পার হওয়ার চেষ্টা করে। পরে সেতুর উভয় প্রান্তে ব্যারিকেড দিয়ে ওই গাড়িতে পুলিশ তল্লাশি চালিয়ে গাড়ি থেকে ১ কোটি ৩৩ লাখ ১৭ হাজার ৫০০ টাকা উদ্ধার করে এবং ওই দুজনকে গ্রেফতার করা হয়। এছাড়া তাদের বহনকারী প্রাইভেটকারটিও জব্দ করে পুলিশ। ওসি হেলাল উদ্দিন জানান, ঘটনার সাথে পুলিশের বিশেষ শাখার এক কর্মকর্তাসহ যুবদলের একাধিক নেতাকর্মী জড়িত রয়েছেন। অন্য আসামিদের নির্দেশে গ্রেফতারকৃত ২ যুবক টাকাগুলো সিরাজগঞ্জ শহরের চামড়াপট্টি থেকে ওই প্রাইভেটকারে করে ঢাকায় নিয়ে যাচ্ছিল। এ টাকাগুলো দেশে নাশকতা, চোরাচালান, অবৈধ অস্ত্র ও মাদকদ্রব্য কেনা কাটার কাজে ব্যবহার হতো বলে ধারনা করা হচ্ছে।(ডেস্ক)