(দিনাজপুর২৪.কম) বিশ্বকাপটাই যেন সাকিবের। পরিসংখ্যানে নজর রাখলেই দেখা যাবে এর প্রমাণ। তিন ম্যাচে ৮৬.৬৬ গড়ে তিনি করেছেন ২৬০ রান। দুটি অর্ধশতকের ১২১ রানের অনবদ্য একটি ইনিংসও রয়েছে তার ব্যাটে। এখন পর্যন্ত বিশ্বকাপের সেরা রান সংগ্রাহক বাংলাদেশ দলের এই নিউক্লিয়াস।

সাকিবের দারুণ ধারাবাহিকতায় তার প্রতি তৈরি হয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট ফ্যানদের এক ধরণের নির্ভরতা।তাকে ছাড়া ভাবা যায় না বাংলাদেশ স্কোয়াড। এমতাবস্থায় শ্রীলংকার বিপক্ষে আজকের ম্যাচে দলের সেরা এই খেলোয়ারটির খেলা নিয়েই তৈরি হয়েছে দারুণ এক শঙ্কা।

৮ জুনের ম্যাচে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সাকিব ১২ চার ও ১ ছক্কায় ১১৯ বলে ১২১ রানের ঝকঝকে ইনিংস খেলেন। বিশ্লেষকরা বলছেন, বিশ্বকাপ মঞ্চে সাকিব বিহীন অনেকটাই নিষ্প্রভ লাল-সবুজের দল। সাকিব ছাড়া মাঠে নামা কল্পনাই করতে পারছে না মাশরাফি।

দলের যখন এমন পরিস্থিতি তখনই বাংলাদেশ শিবিরে এলো বড় ধরনের এক দুঃসংবাদের ধাক্কা। আজ ব্রিস্টলে শ্রীলংকার বিপক্ষে সাকিব আল হাসানের মাঠে নামা অনিশ্চিত!

ক্রিকবাজ জানিয়েছে, গত শনিবার কার্ডিফে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে খেলার সময় ঊরুতে চোট পান সাকিব। যে কারণে গতকাল সোমবার টিমের সবাই ব্রিস্টলে অনুশীলন করলেও সাকিব ছিলেন দর্শক। নেটে ব্যাটিং-বোলিং কিছুই করেন নি তিনি। এরপরই সাকিবের খেলা নিয়ে দুশ্চিন্তায় পড়তে হয় বাংলাদেশকে।

গতকাল সোমবার ব্রিস্টলের একটি হাসপাতালে চোটের জন্য স্ক্যানও করিয়েছেন সাকিব আল হাসান।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের ফিজিও থিহান চন্দ্রমোহন জানান, ‘আমরা বিশেষজ্ঞের মূল্যায়ন ও প্রতিবেদনের জন্য অপেক্ষা করছি।’

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সাকিবের খেলার সম্ভাবনা ৫০ ভাগ বলে জানিয়েছিলেন বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের নির্বাচক হাবিবুল বাশার।

বাংলাদেশ দলের সাবেক এ অধিনায়ক জানান, ‘স্ক্যান রিপোর্টের পর আমরা এ ব্যাপারে বিস্তারিত জানতে পারব, তবে এখন পর্যন্ত সাকিবের খেলার সম্ভাবনা ৫০ ভাগ।’

প্রায় এক দেড় বছর ধরেই ইনজুরি পিছু ছাড়ছে না সাকিব আল হাসানের। এতদিন ইনজুরি ছিল হাতের আঙুলে। আয়ারল্যান্ড সিরিজে সাইড স্ট্রেইনে। এবার টান লাগলো উরুতে। সাকিব আল হাসানের সঙ্গে বাংলাদেশের ভাগ্যটাও যে অনিশ্চিতের দিকে চলে গেলো, সেটা বলাই বাহুল্য।এতকিছুর পরও ভক্তদের আশা, চোটের দুশ্চিন্তা থেকে মুক্ত হয়ে আজই মাঠে নামবেন সাকিব আল হাসান।

এদিকে তিন ম্যাচে ১ জয় ও ২ হারে বাংলাদেশের এখন সংগ্রহ ২ পয়েন্ট। এতে সেমিফাইনালে খেলাটা দিনদিন কঠিন সমীকরণে পরিণত হতে চলেছে। -ডেস্ক