(দিনাজপুর২৪.কম) বিএনপির নেতা-কর্মীদের গ্রেপ্তার, হয়রানি করে সরকার ‘পরিকল্পিতভাবে আরেকটি বিতর্কিত’ নির্বাচনের দিকে এগোচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন দলটির নেতা রুহুল কবির রিজভী। শুক্রবার দুপুরে রাজধানীর নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এই অভিযোগ করেন তিনি।

রিজভী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও তার নেতৃত্বাধীন কোয়ালিশন সরকারের পার্টনার জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ আনুষ্ঠানিকভাবে নির্বাচনী প্রচারণা চালাচ্ছেন। আর বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে জাল নথির ওপর ভিত্তি করে ভুয়া ও মিথ্যা মামলায় হয়রানির মাধ্যমে জুলুম করা হচ্ছে প্রায় প্রতিদিন। বিএনপি নেতা-কর্মীদের ওপর চলছে জেল, জুলুম, নির্যাতন, গ্রেপ্তার ও গণগ্রেপ্তার।’

‘এই রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে জনগণের কাছে প্রমাণ হয়ে গেছে সরকার পরিকল্পিতভাবে ভিন্ন কৌশলে আরেকটি বিতর্কিত নির্বাচনের দিকে এগুচ্ছে। কারণ ভোটারবিহীন সরকার ক্ষমতার মগডালে বসে থাকার মজাটা পাচ্ছে, তাই তারা নাছোড়বান্দার মতো ক্ষমতা ধরে রাখতে আগ্রহী’, বলেন বিএনপির এই জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব।

বিএনপিকে হয়রানিতে রেখে সরকার নিজেদের পছন্দের নির্বাচন করতে চায় অভিযোগ করে তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগ কখনোই গণতন্ত্রের জন্য স্বাস্থ্যকর নয়। তবে নিপীড়ন করে কোনো স্বৈরশাসকের শেষ রক্ষা হয়নি, এ সরকারেরও হবে না।’

বিএনপি নেতা-কর্মীদেরকে গ্রেপ্তারের কঠোর সমালোচনা করে রিজভী বলেন, ‘যখন ইচ্ছা হচ্ছে বাসা থেকে, রাস্তা থেকে, হাটবাজার থেকে, দলীয় কার্যালয় থেকে তাদের তুলে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। প্রথমে অস্বীকার করার পর দরকষাকষি শুরু হয়, বলা হয় বেশি টাকা দিলে হালকা মামলা দেওয়া হবে, আর কম টাকা দিলে কঠিন মামলা দেওয়া হবে। আর যদি অর্থ দিতে অক্ষম হয় তাহলে শুরু হয় অমানবিক শারীরিক নির্যাতন। এটিই হচ্ছে আওয়ামী লীগের গণতন্ত্র ও শাসনের নমুনা।’

খালেদা জিয়ার ওপর বিচারের নামে অবিচার করা হচ্ছে অভিযোগ করে বিএনপির এই জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব বলেন, ‘প্রহসনের বিচার নিয়ে মানুষের ক্ষোভ ভষ্মাচ্ছাদিত বহ্নির মতো ধিকিধিকি জ্বলছে। দেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় নেত্রী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মিথ্যা মামলার বিচার নিয়ে কোনো নেতিবাচক সিদ্ধান্ত হলে জনরোষ চরম প্রতিবাদের শক্তিতে রাজপথে আছড়িয়ে পড়বে।’

বিএনপি নেতাদের গ্রেপ্তারের চিত্র তুলে ধরে রিজভী বলেন, ‘বৃহস্পতিবার থেকে এ পর্যন্ত গ্রেপ্তার করা হয়েছে ৩৫ জনের অধিক নেতা-কর্মীকে। গত চার দিনেই গ্রেপ্তার করা হয়েছে প্রায় ২৭৫ জনের অধিক নেতা-কর্মীকে।’

আইনশৃঙ্খলা বাহিনী বিএনপি নেতাদের বাসায় বাসায় গিয়ে তল্লাশি চালাচ্ছে অভিযোগ করে রিজভী গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেন এবং গ্রেপ্তার হওয়া নেতা-কর্মীদের নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করেন। -ডেস্ক