(দিনাজপুর২৪.কম) নারীদের নিয়ে অশালীন মন্তব্য করে প্রবল সমালোচনার মুখে পদত্যাগ করলেন টোকিও অলিম্পিক আয়োজক কমিটির প্রধান ইয়োশিরো মোরি।আজ শুক্রবার অলিম্পিক আয়োজক কমিটির এক বিশেষ বৈঠকে এই ঘোষণা দেন ৮৩ বছর বয়সী মোরি।তিনি ২০০০ থেকে ২০০১ পর্যন্ত জাপানের প্রধানমন্ত্রী ছিলেন।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ানের খবরে বলা হয়,ইয়োশিরো মোরি পদত্যাগের সময় নারীদের প্রতি অশালীন মন্তব্য করার জন্য আবারও ক্ষমা চান। তিনি বলেন, ‘আমার অনুপযুক্ত মন্তব্য বড় ধরনের সমস্যা তৈরি করেছে। আমি দুঃখিত।’

অলিম্পিক নিয়ে পদত্যাগকারী এ কর্মকর্তা বলেন, ‘এখন সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো টোকিও অলিম্পিকের সফল আয়োজন।’

গত বছর আয়োজিত হওয়ার কথা ছিল টোকিও অলিম্পিক। করোনাভাইরাসের কারণে তা এক বছর পিছিয়ে দেওয়া হয়। আগামী জুন-জুলাইয়ে অনুষ্ঠিত হবে টোকিও অলিম্পিক। এ টুর্নামেন্টের মাত্র পাঁস আগে পদত্যাগ করলেন মোরি।

চলতি মাসের শুরুর দিকে অলিম্পিক কমিটির এক বৈঠকে ইয়োশিরো মোরি বলেছিলেন,‘নারীরা বেশি কথা বলে এবং বৈঠকে বেশি নারী পরিচালক থাকলে সময় বেশি লাগে।’ তার এ মন্তব্যে বিশ্বব্যাপী সমালোচনার ঝড় ওঠে।অবশেষে তাকে বরখাস্ত করার দাবি ওঠে।

ইয়োশিরো মোরি তার বিরুদ্ধে সমালোচনা শুরু হওয়ার পরপরই নিজের করা মন্তব্যের জন্য ক্ষমা চান। তবে তিনি তখন পদত্যাগ করতে রাজি হননি।তবে গত এক সপ্তাহ ধরে ক্রমাগত চাপ বাড়তে থাকায় সরে যেতে বাধ্য হলেন তিনি। টয়োটাসহ অলিম্পিকের মূল পৃষ্ঠপোষক কোম্পানিগুলো তার মন্তব্যের সমালোচনা শুরু করেছিল।গত মঙ্গলবার অস্ট্রেলিয়ার একদল নারী আইন প্রণেতা মোরির ওই মন্তব্যের প্রতিবাদে সাদা পোশাক পরেন। তাদের সঙ্গে সংহতি প্রকাশে একই কাজ করেন কিছু পুরুষও।

মোরির মন্তব্যের প্রতিবাদস্বরূপ টোকিও গভর্নর ইউরিকো কোয়িকে অলিম্পিকের শীর্ষ কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠকে অংশগ্রহণে অস্বীকৃতি জানান। এই প্রতিযোগিতা থেকে চারশর বেশি স্বেচ্ছাসেবী তাদের আবেদন প্রত্যাহার করে নিয়েছেন বলে অস্ট্রেলিয়ার বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে খবর প্রকাশিত হয়। -ডেস্ক