মোস্তাফিজুর রহমান

(দিনাজপুর২৪.কম) দারুণ বোলিংয়ে জেমকন খুলনার বিপক্ষে ম্যাচে সব আলো কেড়ে নিলেন মোস্তাফিজুর রহমান। গাজী গ্রুপ চট্টগ্রামের বাঁহাতি পেসারের বোলিং ফিগার ৩.৫-০-৫-৪। গতকাল পুরনো মোস্তাফিজকেই যেন দেখা গেল। কাটারে ধার ছিল, লাইন-লেংথও নিয়ন্ত্রিত। তার দুর্দান্ত বোলিংয়ের ম্যাচে খুলনা ১৭.৫ ওভারে ৮৬ রানে অলআউট।

এ ম্যাচেও বিবর্ণ সাকিব আল হাসান। ওপেন করতে নেমে ৭ বলে ৩ রানে আউট হয়েছেন খুলনার ব্যাটসম্যান। তবে গড়েছেন একটি নজির। স্বীকৃত টি-টোয়েন্টিতে তামিম ইকবালের পর বাংলাদেশের দ্বিতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে ৫ হাজার রানের কোঠা ছুঁয়েছেন সাকিব। ডোয়াইন ব্রাভো, আন্দ্রে রাসেলের পর তৃতীয় অলরাউন্ডার হিসেবে ৫ হাজার রান ও ৩০০ উইকেটের দেখা পেলেন সাকিব। ৩১১ ম্যাচে তার রান ৫ হাজার। উইকেট শিকার করেছেন ৩৫৫টি।

বেক্সিমকো ঢাকার বিপক্ষে প্রথম ম্যাচেও উজ্জ্বল ছিলেন মোস্তাফিজ। ১৩ রানে পেয়েছিলেন ২ উইকেট। গতকাল তো বল হাতে রীতিমতো খুলনার ব্যাটসম্যানদের ওপর স্টিমরোলার চালিয়েছেন এ পেসার। তার শিকার হয়ে সাজঘরে ফেরেন আরিফুল হক, শামীম হোসেন, রিসাদ হোসেন, আল-আমিন হোসেন।

টি-টোয়েন্টি সংস্করণে বাংলাদেশের বোলারদের মধ্যে মোস্তাফিজই সবচেয়ে কম রান দিয়ে ৪ উইকেট পেলেন। ৮৬ রান তাড়ায় গাজী গ্রুপ চট্টগ্রাম ১৩.৪ ওভারে ৯ উইকেটে জয় তুলে নেয়। এ ম্যাচেও দারুণ ব্যাট করেছেন লিটন দাস, সৌম্য সরকার। ৪৬ বলে ৫৩ রানের ইনিংস খেলা লিটন দলকে জয়ী করে মাঠ ছাড়েন। সৌম্য ২৯ বলে ২৬ রান করেন। মুমিনুল ৫ রানে অপরাজিত ছিলেন।

মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে টস হেরে প্রথমে ব্যাটিংয়ে নামা খুলনা শুরু থেকেই নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকে। ইমরুল (২১), জহুরুল (১৪), আরিফুল (১৫), শামীম (১১) ছাড়া আর কোনো ব্যাটসম্যান দুই অঙ্কের ঘরে রান পাননি। মোস্তাফিজের দিনে নাহিদুল ও তাইজুল দুটি করে উইকেট শিকার করেন। বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপে মিঠুনের চট্টগ্রাম টানা দ্বিতীয় জয়ের স্বাদ পেল। অন্যদিকে তৃতীয় ম্যাচ খেলা মাহমুদউল্লাহর খুলনার এটি দ্বিতীয় হার। -ডেস্ক