(দিনাজপুর২৪.কম)মিশ্র প্রবণতায় শেষ হয়েছে সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসের লেনদেন। প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) বৃহস্পতিবার বেশিরভাগ কোম্পানির শেয়ারদর বেড়ে লেনদেন শেষ হয়েছে। বিপরীত অবস্থায় লেনদেন শেষ হয়েছে অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই)।
তবে ডিএসইতে বেশিরভাগ শেয়ারের দর বাড়া সত্ত্বেও সবগুলো বাজার মূলসূচক কমেছে। আর সিএসইতে স্বাভাবিক কারণেই সূচকগুলো ছিল নিম্নমুখী।
এদিকে বাজার মূল্যসূচকের পাশাপাশি আজ উভয় শেয়ারবাজারের সম্মিলিত শেয়ার কেনাবেচার পরিমাণ কমেছে। দুই বাজার মিলে আজ ৪৩৮ কোটি ৬০ লাখ টাকা মূল্যের শেয়ার কেনাবেচা হয়েছে; যা গতকালের তুলনায় ৫২ কোটি ৫৮ লাখ টাকা কম। এর মধ্যে ডিএসইতে ৪০৬ কোটি ৭৫ কোটি টাকার শেয়ার কেনাবেচা হয়েছে।
আজ লেনদেন শুরুর প্রথম এক ঘণ্টা উভয় শেয়ারবাজারে বড় উত্থান-পতন দেখা যায়। সকাল সাড়ে ১০টায় বেশিরভাগ শেয়ারের দরবৃদ্ধির মধ্য দিয়ে লেনদেন শুরু হলেও তা স্থায়ী হয় প্রথম ২০ মিনিট। এরপর কমতে থাকে অধিকাংশ শেয়ারের দর। শেষ পৌনে এক ঘণ্টায় শেয়ারের দর বেড়েছে।
ডিএসইর খাতওয়ারি লেনদেন পর্যালোচনায় দেখা গেছে, আজ বীমা, প্রকৌশল, বস্ত্র, খাদ্য ও আনুসঙ্গিক, সেবা ও নির্মাণ এবং কাগজ খাতের অধিকাংশ শেয়ারের বাজারদর বেড়েছে। কমেছে ব্যাংক, ব্যাংকবহির্ভূত আর্থিক, জ্বালানি ও বিদ্যুৎ এবং সিমেন্ট খাতের বেশিরভাগ শেয়ারদর। অন্য খাতে ছিল মিশ্রাবস্থা।
দিনের লেনদেন শেষে প্রাপ্ত তথ্যানুযায়ী, ডিএসইতে তালিকাভুক্ত ৩২৪ কোম্পানির শেয়ার, মিউচুয়াল ফান্ড ও করপোরেট বন্ডের মধ্যে আজ ৩১২টির কেনাবেচা হয়েছে। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১৪৭টির, কমেছে ১২১টির এবং অপরিবর্তিত ছিল ৪৪টির দর।
আর সিএসইতে ৯৪টির দরবৃদ্ধির বিপরীতে ১১৭টির দর কমেছে এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২৯ টির দর।
আজ ডিএসইতে দরবৃদ্ধির শীর্ষ তালিকার প্রথমে ছিল- হাক্কানি পাল্প অ্যান্ড পেপার কোম্পানির শেয়ার। এর সর্বশেষ লেনদেনটি হয়েছে ৩১.৯০ টাকায়। দরবৃদ্ধির হার ১০ শতাংশ।
ডিএসইতে দরবৃদ্ধির শীর্ষে এরপরের অবস্থানে ছিল যথাক্রমে-আনোয়ার গ্যালভানাইজিং (৩৮.৯০ টাকা/৯.৮৮%), মুন্নু সিরামিক্স (২৫.৬০ টাকা/৯.৮৭%), এশিয়া ইন্সুরেন্স (১৭.৭০ টাকা/৯.২৫%), ন্যাশনাল টিউবস (১০৮.৫০ টাকা/৯.১৫%)।
এদিকে বৃহস্পতিবার এ বাজারে সর্বাধিক ৯ দশমিক ৪৪ শতাংশ দরপতন হয়েছে সমতা লেদারের। এর সর্বশেষ লেনদেন মূল্য ছিল ১৬.৩০ টাকা।
দরপতনে এরপরের অবস্থানে ছিল- রহিমা ফুড করপোরেশনস (৩৩.৯০ টাকা/ -৬.৮৬%), ইমাম বাটন (৮.৫০ টাকা/ -৪.৪৯%), পিএইচপি প্রথম মিউচুয়াল ফান্ড (৪.৩০ টাকা/ -৪.৪৪%) এবং ন্যাশনাল টি কোম্পানি (৬৫০ টাকা/ -৪.৪১%)।
ডিএসইর লেনদেন পর্যালোচনায় আরও দেখা গেছে, এদিন ৫ কোম্পানির শেয়ার দিনের সার্কিটব্রেকার নির্ধারিত সর্বোচ্চ দরে কেনাবেচা হয়েছে। এর মধ্যে তিনটি লেনদেনের শেষ পর্যন্ত ওই দরে স্থির ছিল।
শেষ পর্যন্ত সার্কিটব্রেকারের সর্বোচ্চ দরে কেনাবেচা হওয়া শেয়ারগুলো হলো- আনোয়ার গ্যালভানাইজিং, হাক্কানি পাল্প অ্যান্ড পেপার এবং মুন্নু সিরামিক্স। বাকি দুটি হলো- এশিয়া ইন্সুরেন্স এবং আরএন স্পিনিং মিলস।
আজ ডিএসইতে খাতওয়ারি লেনদেনের শীর্ষে ছিল ওষুধ ও রসায়ন খাত। এ খাতের ২৬ কোম্পানির ৬৪ কোটি ২৬ লাখ টাকা মূল্যের শেয়ার কেনাবেচা হয়েছে। এর মধ্যে স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস কোম্পানির ১৭ কোটি ১৬ কোটি টাকার শেয়ার কেনাবেচা হয়েছে।
খাতওয়ারি লেনদেনে এরপরের অবস্থানে ছিল- প্রকৌশল খাতের ৩০ কোম্পানির ৬১ কোটি ০৪ লাখ টাকা, বস্ত্র খাতের ৪০ কোম্পানির ৫৮ কোটি ০৪ লাখ টাকা, জ্বালানি ও বিদ্যুৎ খাতের ১৮ কোম্পানির ৪৯ কোটি ৯৪ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন।
আজও একক কোম্পানি হিসেবে ডিএসইতে লেনদেনের শীর্ষে ছিল ইউনাইটেড এয়ারওয়েজ। এ কোম্পানির আজ ১৭ কোটি ২৭ লাখ টাকা মূল্যের শেয়ার কেনাবেচা হয়েছে।
লেনদেনের শীর্ষে এরপরের অবস্থানে ছিল- ইফাদ অটোস (মোট লেনদেন ১১.৫২ কোটি টাকা/ সর্বশেষ বাজারদর ১০৯.৭০ টাকা), বিএসআরএম লিমিটেড (১১.৩৮ কোটি টাকা/ ৭৪.১০ টাকা), বেক্সিমকো লিমিটেড (১১.২৭ কোটি টাকা/ ৩২.৭০ টাকা), খুলনা পাওয়ার (১০.৮৬ কোটি টাকা/৬৯.৬০ টাকা)। (ডেস্ক)