স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক ও সংসদ সদস্য হারুনুর রশীদ। পুরোনো ছবি

(দিনাজপুর২৪.কম) মেডিকেলে ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্নফাঁসের বিষয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক জাতীয় সংসদে সঠিক উত্তর দেননি বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপিদলীয় সংসদ সদস্য (এমপি) হারুনুর রশীদ। এ সময় জাতীয় সংসদে প্রশ্নোত্তর পর্বের জন্য জমা দেওয়া প্রশ্ন পরিবর্তনের অভিযোগও করেন তিনি। অভিযোগ দুটি করে তিনি স্পিকার শিরিন শারমিন চৌধুরীর কাছে এর প্রতিকার চান।

আজ মঙ্গলবার জাতীয় সংসদে এ অভিযোগ করেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য হারুনুর রশীদ। স্পিকারের উদ্দেশে এ সময় কার্যপ্রণালী বিধির ৩০৮ বিধির কথা উল্লেখ করে হারুন বলেন, ‘আমরা কষ্ট করে সংসদে প্রশ্ন জমা দিই। তার আলোকে আপনি ক্ষমতাবলে যেগুলো গ্রহণ করেন, মাননীয় মন্ত্রীরা তার উত্তর দিয়ে থাকেন। আমরা যেভাবে প্রশ্নটা জমা দিই, হুবহু সেইভাবে আসা উচিত। আপনি গ্রহণ না করতে পারেন। কিন্তু আপনার মতো করে তো পরিবর্তন করতে পারবেন না। এই বিষয়টি দৃষ্টিতে আনতে চাই।’

গতকাল সোমবার মেডিকেল ও ডেন্টাল কলেজে ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্নফাঁস নিয়ে তার করা প্রশ্নে স্বাস্থ্যমন্ত্রী ভুল উত্তর দিয়েছেন দাবি করে এমপি হারুন বলেন, ‘স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, ‘‘গোয়েন্দা নজরদারির মাধ্যমে স্বচ্ছ প্রক্রিয়ায় নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তায় ভর্তি পরীক্ষা গ্রহণ করা হয়ে থাকে। ভর্তি প্রক্রিয়ায় অসৎ উপায়ে ভর্তির কোনো অভিযোগ কোনো পক্ষ থেকে পাওয়া যায়নি। অভিযোগ পাওয়া গেলে যথাযথ আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’’ মন্ত্রীর ওই জবাব সঠিক নয়।’

সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত খবরের উদ্ধৃতি দিয়ে হারুনুর রশীদ বলেন, ‘২০১৪ থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত প্রতি বছরই ধারাবাহিকভাবে প্রশ্ন ফাঁস হয়েছে। এর বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। সিআইডি তদন্ত করে সত্যতা পেয়েছে। অনেককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অনেকে প্রশ্নফাঁস করে কোটি কোটি টাকা আত্মসাৎ করেছেন। তাই মন্ত্রীর উত্তর বাতিল করতে হবে।’

বিএনপির এ এমপির দুই অভিযোগের বিষয়ে স্পিকার শিরিন শারমীন চৌধুরী বলেন, ‘প্রশ্ন পরিবর্তনের বিষয়টি আমি দেখব। কিন্তু প্রশ্নের উত্তর তো মন্ত্রী দিয়েছেন। এটা নিয়ে কিছু করার নেই।’ -ডেস্ক