(দিনাজপুর২৪.কম) সাইফ হাসানের সেঞ্চুরিতে তৃতীয় ও শেষ আনঅফিশিয়াল ওয়ানডেতে বড় স্কোর গড়েছিল বাংলাদেশ ‘এ’ দল। জবাব দিতে নামা শ্রীলঙ্কা ‘এ’ দলের ইনিংসে বাগড়া বসায় বৃষ্টি। ডাকওয়ার্থ লুইস মেথডে ৯৮ রানে জয় পায় মোহাম্মদ মিঠুনের নেতৃত্বাধীন দল। ফলে তিন ম্যাচের সিরিজ ২-১ এ জিতে নিল সফরকারীরা।

শনিবার কলম্বোর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে টস হেরে আগে ব্যাট করে ৯ উইকেটে ৩২২ রানের পুঁজি গড়ে বাংলাদেশ। সাইফের সেঞ্চুরি ছাড়াও ফিফটি করেন আরেক ওপেনার মোহাম্মদ নাঈম। জবাব দিতে নামা লঙ্কানদের ইনিংসের ২৫তম ওভারে বৃষ্টি নামে। ২৪.৪ ওভারে ৬ উইকেটে তখন ১৩০ রান ছিল লঙ্কানদের স্কোর বোর্ডে।

পরে আর বৃষ্টি থামেনি। তাই আসে ডি/এল মেথড। হিসেবে দেখা যায় জয়ের জন্য ২৪.৪ ওভারে শ্রীলঙ্কাকে করতে হতো ২২৯ রান।

শ্রীলঙ্কার পক্ষে সর্বোচ্চ ৫৫ রানের ইনিংস খেলেছেন কামিন্দু মেন্ডিস। বাংলাদেশের পক্ষে সর্বাধিক ২টি করে উইকেট নেন ইবাদত হোসেন ও সাইফ হাসান।

এর আগে সাইফ ও নাঈমের ব্যাটে উড়ন্ত শুরু পায় অতিথি দল। দলীয় ১২০ রানে থামে তাদের ওপেনিং জুটি। ‘অবস্ট্রাক্টিং দ্য ফিল্ড’ অর্থাৎ ইচ্ছাকৃতভাবে প্রতিপক্ষের ফিল্ডিংয়ে বাধা দিয়ে উইকেট ছাড়া হন নাঈম। এর আগে ৭৬ বলে ৫ চার ও ২ ছক্কায় ৬৬ রান করেন বাঁহাতি এই ব্যাটার।

উইকেটের একপ্রান্ত আগলে রাখেন সাইফ। তাকে খুব একটা সঙ্গ দিতে পারেননি অন্যরা। থিতু হয়ে ফিরেছেন অধিনায়ক মোহাম্মদ মিঠুন (৩৫)। বাকিদের কারো ইনিংসই উল্লেখযোগ্য নয়।

ব্যাটে ঝড় তুলে দলীয় ২৫৫ রানে উইকেট ছাড়া হন সাইফ। এর আগে ১১০ বলে খেলেন ১১৭ রানের ইনিংস! এতে রয়েছে ১২টি চার ও ৩ টি ছক্কার মার। শ্রীলঙ্কার বোলারদের মধ্যে সর্বাধিক ৪ উইকেট নেন পেসার শিরন ফার্নান্দো। ৩ উইকেট নেন বিশ্ব ফার্নান্দো।

সফরে দুই দল দুটি চার দিনের ম্যাচ খেলে। সেই সিরিজ ড্র হয়েছিল। তবে ওয়ানডে সিরিজ জয়ের তৃপ্তি নিয়ে ফিরছে মিঠুন-সাইফরা। প্রথম ওয়ানডে ৭ উইকেটের বড় ব্যবধানে হারে বাংলাদেশ। তবে পরের ম্যাচে ১ উইকেটের নাটকীয় জয়ে ফেরে সিরিজে।-ডেস্ক