(দিনাজপুর২৪.কম) বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ এমপি বলেছেন, বিএনপি যত কথা বলুক না কেন, শেষ পর্যন্ত তারা আগামী সংসদ নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করবে।
তিনি বলেন, ২০১৯ সালের ২৯ জানুয়ারির আগের ৯০ দিনের যে কোন দিন আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। বাণিজ্যমন্ত্রী মন্ত্রী আজ দুপুরে জেলার লালমোহন উপজেলায় ‘লার্নিং এন্ড আর্নিং’ মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন। ভোলার জেলা প্রশাসক মো: সেলিমউদ্দিন অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন।

তোফায়েল আহমেদ বলেন, আজকে দেশের প্রতিটি স্কুল কলেজে কম্পিউটার রয়েছে। ছাত্র ছাত্রীরা সবাই লার্লিং এন্ড আর্নিং এ মনোনিবেশ করেছে। এখানে বসেই দেশের তরুণ সমাজ আউট সোর্সিং এর মাধ্যমে অনেক বৈদেশিক মুদ্রা আয় করতে পারছে। তিনি বলেন, ২০২১ সালে স্বাধীনতার ৫০ বছর পুর্তিতে বাংলাদেশ একটি উন্নত মধ্যেম আয়ের দেশে পরিণত হবে। সেই লক্ষ্যমাত্রা বাস্তবায়নে প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে কাজ করছে সরকার। ইতোমধ্যে দেশ ডিজিটাল বাংলাদেশে পরিনত হতে চলছে।

বিএনপির আমলে কোন উন্নয়ন হয়নি উল্লেখ করে তোফায়েল আহমেদ বলেন, তারা লুটপাট ও আওয়ামীলীগ দমনের রাজনীতিতে ব্যস্ত ছিলো। তাদের অত্যাচারে কোন আওয়ামীলীগ নেতা-কর্মী এলাকায় থাকতে পারেনি। এমনকি তার নিজ গাড়িতে হামলা চালানোর কথা উল্লেখ করেন মন্ত্রী।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন, জাতীয় সংসদের চীফ হুইপ আ স ম ফিরোজ, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, ভোলা-৩ আসনের সংসদ সদস্য নুরুন্নবী চৌধুরী শাওন।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জোনায়েদ আহমেদ পলক বলেন, প্রত্যন্ত অঞ্চলের ছেলে মেয়েরা ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার জন্য যাতে যোগ্য নাগরিক গড়ে হিসেবে উঠতে পারে, এ প্রজন্ম যেন হাইস্পিড ইন্টারনেট ব্যবহারের মাধ্যমে ইউরোপ, আমেরিকা, বিশ্বের বিভিন্ন দেশের বড় বড় কোম্পানিতে আউট সোর্সিং করতে পারে সেভাবেই সরকার কর্ম পদ্ধতি গ্রহণ করেছে।

তিনি বলেন, এক সময় মোবাইল ফোন অনেক দামি ছিলো। বর্তমান সরকারের আমলে যা অনেক সহজলভ্য। বিকালে বাণিজ্যমন্ত্রী লালমোহন সরকারি কলেজ মাঠে ‘সজীব ওয়াজেদ জয় ডিজিটাল পার্কের উদ্বোধন করেন।

প্রায় ১০ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত পার্কটিতে দেশের সবচেয়ে বৃহৎ এলইডি টিভি, ফ্রি ওয়াইফাই জোনসহ বিভিন্ন ডিজিটাল সুবিধা থাকছে। প্রতিদিন দুপুরের পর থেকে রাত পর্যন্ত পার্কটি সর্ব সাধারণের জন্য উন্মুক্ত থাকবে। -ডেস্ক