মোঃ ইউসুফ আলী  (দিনাজপুর২৪.কম)  মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকি এমপি বলেছেন, দেশে হত্যার ঘটনা অনেক আগেই শুরু হয়েছে।  ১৯৭৫ সালের ১৫ আগষ্ট বঙ্গবন্ধুর ছোট শিশু রাসেল এর মাথায় পিস্তল ঠেকিয়ে গুলি করে হত্যা করেছিল। সে সময় প্রতিবন্ধী শিশু শুকান্ত বাবুকে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। কিন্তু নির্যাতন করে বিবেকহীনরা। বিগত শিশু নির্যাতন প্রতিরোধে সরকার ও জনগণের সম্মিলিত উদ্যোগ প্রয়োজন। তবেই শিশু নির্যাতন সমাজ থেকে নির্মূল করা সম্ভব হবে। শিশুদের সুরক্ষায় অভিভাবকদের সচেতন হতে হবে। ১৩ আগষ্ট বৃহস্পতিবার দিনাজপুর জেলা প্রশাসক সম্মেলন কক্ষে সাউথ এশিয়ার নারী-শিশু নির্যাতন প্রতিরোধে সামাজিক করণীয় বিষয়ক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় মন্ত্রী উপরোক্ত কথা বলেন। মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের আওতায় সাইভাক বাংলাদেশের উদ্যোগে সার্ক ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশনের অর্থায়নে আয়োজিত এ সেমিনারে বিশেষ অতিথি ছিলেন জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি, সেলিনা জাহান লিটা এমপি প্রমুখ। জেলা প্রশাসক মীর খায়রুল আলমের সভাপতিত্বে কর্মশালায় অন্যানের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব (সেল) ও সাইভাক বাংলাদেশের ন্যাশনাল কো-অর্ডিনেটর এবং ন্যাশনাল ইনিসিয়েটিভ টু এন্ড ভায়োলেন্স এগেইনস্ট চিলড্রেন প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক ড. মোঃ আমিনুল ইসলাম, সাবেক এমপি সুলতানা বুলবুল, জাতীয় মহিলা সংস্থার কেন্দ্রীয় চেয়ারম্যান এ্যাড. মমতাজ বেগমসহ বিভিন্ন উপজেলার ইউএনও ও উপজেলা চেয়ারম্যানবৃন্দ। কর্মশালায় জিও-এনজিও দিনাজপুরের বিভিন্ন উপজেলার উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার, সরকারী, বেসরকারী পর্যায়ের বিভিন্ন দপ্তরের অফিস প্রধানগণ অংশ নেন। উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোঃ আবু রায়হান মিঞা, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা) মোঃ তৌহিদুল ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ সাখাওয়াত হোসেন প্রমুখ। মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী একই দিন বিকেল সাড়ে ৩টায় জেলা শিল্পকলা একাডেমী মিলনায়তনে দিনাজপুর জেলা প্রশাসন ও জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা কার্যালয়ের আয়োজেন সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনীর আওতায় প্রাপ্ত উপকারভোগী মহিলা সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এবং সর্বশেষে শহরের মুন্সিপাড়াস্থ দিনাজপুর জাতীয় মহিলা সংস্থা অফিস কমপ্লেক্স দিনাজপুর এর নব নির্মিত ৩ তলা ভবনের শুভ উদ্বোধন করেন। পর্যায়ক্রমে উক্ত অনুষ্ঠানগুলিতে উপস্থিত ছিলেন হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি, সেলিনা জাহান লিটা এমপি, জাতীয় মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান অধ্যাপক মমতাজ বেগম এ্যাডভোকেট, জাতীয় মহিলা সংস্থার কেন্দ্রীয় উপ-পরিচালক জাহানারা পারভীন, জেলা প্রশাসক মীর খায়রুল আলম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোঃ আবু রায়হান মিঞা, জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা রোখসানা বানু হাবিব, জাতীয় মহিলা সংস্থা দিনাজপুরের চেয়ারম্যান তারিকুন বেগম লাবুনসহ অন্যান্য কর্মকর্তাবৃন্দ।