(দিনাজপুর২৪.কম) কলকাতার জনপ্রিয় মডেল রাতাশ্রী দত্তের বড়পর্দায় অভিষেক ঘটতে যাচ্ছে ঢাকার চলচ্চিত্র তুখোড়ে’র মাধ্যমে। তরুণ নির্মাতা মিজানুর রহমান লাবুর পরিচালনায় চলচ্চিত্রটিতে রাতাশ্রীর বিপরীতে রয়েছেন নবাগত শিবলী নওমান। গত ১৬ মে রাজধানীর একটি ক্লাবে বর্ণিল আয়োজনে চলচ্চিত্র তুখোড়রের পরিচিতি অনুষ্ঠানের আয়োজন করে প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান পজেটিভ সিস্টেম্স এন্ড সাাপোর্টস্।
মাহমুদুল হক রাজীবের কাহিনী ও এহ্তেশামুল হক সানজিবের প্রযোজনায় তুখোরে রাতাশ্রী ও শিবলী ছাড়াও অভিনয় করেছেন আলিরাজ, বাপ্পারাজ, শিমুল খান, রহমতউল্লাহ্, মাহমুদুল ইসলাম মিঠু, সামিহা খান, সাদিয়া সোমা, টুটুল চৌধুরী, রাশেদ মামুন অপু, শিখা খান, শায়েরী ও আইটেম সং-এ পারফর্ম করেছেন ষ্টানিং মিতু। বাংলাদেশের মনোরম লোকেশনের পাশাপাশি বড় বাজেটের এ চলচ্চিত্রটির শ্যুটিং হয়েছে ব্যাংককের ফুকেট ও অস্ট্রেলিয়ার সিডনীতে। কলকাতার রেন্ট সিনেমাটিক্স এবং ই. কিউ. মিউজিক ষ্টেশনের কারিগরী সহযোগিতায় তুখোড়ের সুর ও সঙ্গীত পরিচালনায় রয়েছেন বেলাল খান, প্রসেনজিত চট্টোপাধ্যায় (কলকাতা) ও তানভীর আলম সজীব। শ্যুটিং শেষে বর্তমানে চলচ্চিত্রটির ডাবিং এর কাজ চলছে।
তুখোড়ের পরিচিতি অনুষ্ঠানে পরিচালক মিজানুর রহমান লাবু বলেন, চলচ্চিত্রের প্রতি আমার ভালবাসাই আজ আমাকে নির্মাতা বানিয়েছে। পরিবারের সকলেই যাতে নির্মল বিনোদনের সুযোগ পায় সেকথা মাথায় রেখেই তুখোড়ের প্রতিটি দৃশ্য ধারন করা হয়েছে।
প্রযোজক এহ্তেশামুল হক সানজিব বলেন, একটি পরিপূর্ণ চলচ্চিত্র নির্মানের জন্য যা যা প্রয়োজন সবই করার চেষ্টা করছি। কোথাও আমরা কোন কমপ্রোমাইজ করিনি। আশা করছি তুখোড় দর্শকের হৃদয় কিছুটা হলেও নাড়া দেবে।
রাতাশ্রী বলেন, আমি কলকাতার হলেও অভিষেক ঢাকার চলচ্চিত্রের মাধ্যমে। তবে বাংলাদেশে কাজ করতে এসে আমার একটিবারের জন্যও মনে হয়নি আমি অন্য দেশে কাজ করছি। তুখোড়ের একটি সুন্দর টিমওয়ার্ক একটি ভালো ফল দিবে বলে আমার বিশ^াস।
শিবলী বলেন, দর্শকই একটি চলচ্চিত্রের প্রান। দর্শকের ভালবাসা নিয়েই এগিয়ে যেতে চাই আমরা দূর বহুদূরে। তুখড়ে’র কাহিনীকার মাহমুদুল হক রাজীব বলেন, চলচ্চিত্রটি প্রথম দৃশ্য থেকে শেষ দৃশ্যের পূর্ব পর্যন্ত প্রতিটি দৃশ্যেই নতুন কিছু দেখতে পাবে দর্শক। তুখোড়ের প্রতিটি দৃশ্যে দর্শক ভিন্নতা খুঁেজ পাবে বলে আমার বিশ্বাস