(দিনাজপুর২৪.কম) সদ্য নেপাল সিরিজ জিতে বিশ্বকাপ বাছাইয়ের ম্যাচ খেলতে কাতার গেছে বাংলাদেশ ফুটবল দল। করোনায় আক্রান্ত হওয়ায় দলের সঙ্গে যেতে পারেননি হেড কোচ জেমি ডে। আর যেতে পারবেন তারও নিশ্চয়তা নেই। নেপাল সিরিজ জয়ের অন্যতম নায়ক নাবীব নেওয়াজ জীবন ও মনজুরুল হক মানিকও দলের সঙ্গী হতে পারেননি। এদের মধ্যে জীবন ইনজুরিতে আর মানিক শেষ মুহূর্তে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।  প্রস্তুতির বিচারে এগিয়ে আছে কাতার। সমপ্রতি ঘানা ও দক্ষিণ কোরিয়ার মতো শক্তিশালী দলের সঙ্গে প্রস্তুতি ম্যাচ খেলেছে বিশ্বকাপের আয়োজক দেশটি। তবে জাতীয় দলের অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়া মনে করেন, লড়াকু এক বাংলাদেশকে দেখবে কাতার।
কাতার পৌঁছে করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা দিয়েছেন ফুটবলাররা।

রিপোর্ট পাওয়ার আগে ও পরে মিলিয়ে তিন দিন হোটেলেই কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে জামাল-সুফিলদের। এই সময়টাতে দলের পুরো ফোকাস কাতার ম্যাচে থাকবে জানালেন বাংলাদেশ অধিনায়ক। কাতারে তিন দিনের কোয়ারেন্টিন করে দুই সপ্তাহের মতো অনুশীলনের সময় পাবে বাংলাদেশ দল। এর মধ্যে কাতার লীগের দুটি ক্লাবের সঙ্গে প্রস্তুতি ম্যাচ খেলার কথা রয়েছে। ফিটনেসসহ কাতার ম্যাচের জন্য উপযুক্ত হতে কঠোর পরিশ্রমের বিকল্প দেখছেন না জামাল। মুঠোফোনে বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক জামাল বলেন, ‘যে দুইটা ম্যাচ (নেপাল ম্যাচ) গেছে, সেগুলো ভুলে যেতে হবে আমাদের। সামনের ম্যাচটা কাতারের সঙ্গে। কাতার অনেক শক্তিশালী দল, এটা সবাই জানে। আরও অনুশীলন করতে হবে। কঠোর পরিশ্রম করতে হবে।’ বিশ্বকাপ বাছাইয়ে কাতারের কাছে প্রথম ম্যাচে ঘরের মাঠে ২-০ ব্যবধানে হেরেছিল বাংলাদেশ। অ্যাওয়ে ম্যাচে তাই আরও কঠিন পরীক্ষার মধ্য দিয়ে যেতে হবে লাল-সবুজদের। তবে বড় প্রতিপক্ষ অনুপ্রেরণার বড় উৎস বলে মনে করেন জামাল। তিনি বলেন, ‘বড় দলের সঙ্গে খেলা সবসময় ভিন্ন অনুপ্রেরণা দিয়ে থাকে। নিশ্চয় কাতার প্রেস করে খেলবে। আমরাও লড়াই করে যাবো। আমরা আমাদের সর্বোচ্চটা দিব মাঠে’। এমন গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচের আগে জেমি ডে’র পূর্ণাঙ্গ সার্ভিস পাচ্ছে না বাংলাদেশ। তবে এতে দলের ওপর খুব একটা প্রভাব পড়বে না বলে মনে করেন জামাল। তিনি বলেন, ‘জেমি ফিজিক্যালি আমাদের সঙ্গে নেই। কিন্তু ওর গাইডলাইন অনুযায়ী স্টুয়ার্ট আমাদের অনুশীলন করাচ্ছে। তাছাড়া ম্যাচের অনেক সময় বাকি আছে। আশা করছি এরমধ্যে সুস্থ হয়ে জেমি আমাদের সঙ্গে যোগ দিবে।’ করোনায় আক্রান্ত জেমি আইসোলেশনে আছেন ঢাকার একটি হোটেলে। তার শীররটা এখানে থাকলেও মন পরে আছে দলের সঙ্গে কাতারে। গতকাল জেমি ডে বলেন, ‘পরিস্থিতির ওপর কারো হাত নেই। এই মুহূর্তে আমার যেখানে থাকার কথা আমি থাকতে পারছি না। তবে এসব ভেবে সময় নষ্ট করার সুযোগ নেই। আমাদের কাতার ম্যাচের দিকে ফোকাস দিতে হবে। আমি ছেলেদের তাই বলেছি। আমি ওদের বলেছি, তোমরা শুরু করো আমি আসছি।
বিশ্বকাপ বাছাইয়ের প্রথম পর্বে ‘ই’ গ্রুপের পয়েন্ট টেবিলে পাঁচ ম্যাচে চার জয় ও এক ড্র নিয়ে শীর্ষে আছে কাতার। আর চার ম্যাচে তিন হার ও এক ড্রয়ে এক পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের তলানিতে বাংলাদেশ। -ডেস্ক