-পুরনো ছবি

(দিনাজপুর২৪.কম) কক্সবাজারে রোহিঙ্গা শরণার্থী ও স্থানীয়দের সহায়তায় ৩০৪ কোটি টাকা (৩২ মিলিয়ন ইউরো) দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন। গতকাল বৃহস্পতিবার সংস্থার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ সহায়তার ঘোষণা আসে। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, এর মধ্যে প্রায় ১১৪ কোটি টাকা ব্যয় হবে রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবির ও ওই এলাকায় করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব মোকাবিলায়। আর বাকি ১৯০ কোটি টাকা খরচ হবে রোহিঙ্গা ও স্থানীয়দের শিক্ষা, স্বাস্থ্য, খাদ্য নিরাপত্তা, পুষ্টি, পানি, পয়ঃনিষ্কাশনসহ বিভিন্ন কাজে। ১৯০ কোটি টাকার প্রায় সাড়ে ৯ কোটি টাকা মিয়ানমারের সঙ্গে আন্তঃসীমান্তে
কাজ করার বিভিন্ন সংস্থার উদ্যোগের পেছনে খরচ করা হবে বলে জানিয়েছে ইইউ।
ইইউ রাষ্ট্রদূত রেনজি টিরিংককে উদ্ধৃত করে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, প্রতিবেশী মিয়ানমার থেকে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের প্রতি বাংলাদেশ যে বদান্যতা ও মানবিকতা দেখিয়েছে, তাতে অংশগ্রহণের জন্য এই ৩২ মিলিয়ন ডলারের অনুদান। বৈশ্বিক মহামারী কোভিড-১৯ মোকাবিলায় বাছাই করা দেশগুলোতে টিম ইউরোপের সাড়াদানের যে প্রক্রিয়া তার অংশ হিসেবে দেওয়া হচ্ছে এ সহায়তা। মহামারীর কারণে অধিক খারাপ অবস্থার মুখোমুখি হওয়া রোহিঙ্গা শিবির ও কক্সবাজারের স্থানীয় জনগোষ্ঠীর সংকটের পেছনে তা খরচ হবে।
ইইউ বলেছে, এই সহায়তার মাধ্যমে যে ?উদ্যোগ তা বাস্তবায়ন করবে জাতিসংঘের শরণার্থী সংস্থা ইউএনএইচসিআর, ইউনিসেফ এবং জাতিসংঘের অফিস ফর প্রজেক্ট সার্ভিসেস (ইউএনওপিএস)। -ডেস্ক