(দিনাজপুর২৪.কম) রিয়াল মাদ্রিদের প্রেসিডেন্ট ফ্লোরেনটিনো পেরেজ জানিয়েছেন ইকার ক্যাসিয়াসের দলত্যাগের ব্যপারে তিনি কোনো প্রকার জোড় দেননি। বরং তিনি চেয়েছিলেন সানতিয়াগো বার্নাব্যু থেকেই ক্যাসিয়াস তার ক্যারিয়ারকে বিদায় জানাক।
 ৩৪ বছর বয়সী এই গোলরক্ষক সপ্তাহের শেষে পর্তুগীজ ক্লাব পোর্তোতে দুই বছরের চুক্তিতে দলবদলের ঘোষণা দিয়েছেন। কিন্তু ক্যাসিয়াসের মাদ্রিদ ছাড়ার বিষয়টি অনেক সমর্থকই মেনে নিতে পারেনি। তাদের ধারণা পেরেজের কারণেই স্প্যানিশ এই অধিনায়ক ক্লাব ছাড়তে বাধ্য হয়েছেন। রিয়াল ছাড়ার ঘোষণার পরে ক্যাসিয়াসের বাবা-মাও ক্লাব সভাপতির দিকে সন্দেহের তীর ছুঁড়ে দিয়েছিলেন। যদিও পেরেজ সব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেছেন তিনি কখনই ক্যাসিয়াসকে এ ব্যপারে কিছু বলেননি, বরং এটা তার একান্তই নিজস্ব সিদ্ধান্ত ছিল।
 এক সংবাদ সম্মেলনে পেরেজ বলেছেন, ‘গত দুই বছর যাবত ক্যাসিয়াসের উপর দারুণ চাপ ছিল। আমিও তার সিদ্ধান্ত মেনে নিতে বাধ্য হয়েছি। কিন্‘ আমার ইচ্ছা ছিল এখানে থেকেই সে তার ক্যারিয়ার শেষ করুক। মাদ্রিদের কেউই ক্যাসিয়াসকে ক্লাব ছাড়ার কথা বলেনি। পোর্তোর থেকে একটা প্রস্তাব ছিল, আমরা সেটা বিবেচনায় নিয়েছিলাম। ক্লাব ছেড়ে যাবার সব ধরনের অধিকার ক্যাসিয়াসের রয়েছে। কারণ ক্লাবের জন্য সে সবকিছুই করেছে। রাওলের সাথেও একই ধরনের ঘটনা ঘটেছিল। মাত্র নয় বছর বয়সে ইকার এই ক্লাবে এসেছিল। যখন সে চলে যাচ্ছে সাথে করে নিয়ে যাচ্ছে সব ধরনের সুখকর অভিজ্ঞতা। আমি নিশ্চিত ক্লাবের সমর্থকরা অবশ্যই তাকে মাদ্রিদের একজন কিংবদন্তী খেলোয়াড় হিসেবেই মনে রাখবে। আমি সবাইকে বলেছি তাকে যথাযথ সম্মানের সাথে বিদায় দিতে। নতুন ক্যারিয়ার শুরুর অধিকার তার রয়েছে। সবসময়ের মত বিদায় বেলায়ও সে একেবারেই নিভৃতে বিদায়ের কথা জানিয়েছে। আমাদের ইচ্ছা আছে ভিন্ন কিছু করার। মাদ্রিদের দরজা ইকারের জন্য সবসময়ই খোলা থাকবে।(ডেস্ক)