(দিনাজপুর২৪.কম) “এবার পাশ করতে না পারলে, রিকশাওয়ালার সাথে বিয়ে দিয়ে দেবো” আমাদের বাবা মায়েদের চিরন্তন উক্তি। ইংরেজি গ্রামারের ভাষায় এই ধরনের বাক্যকে বলে “ইউনিভার্সাল ট্রুথ” বা চিরন্তন সত্য।

একজন বাঙালি মেয়ে জীবনে অতন্ত কয়েকশবার এই বাক্যটি তার বাবা মা কিংবা নিকটআত্নীয়ের কাছ থেকে শ্রবণ করে থাকেন। যা একটি মেয়ের জন্যে একিসাথে লজ্জার এবং ভয়ানক উদ্রেগের।

আজ ২০১৯ সালের মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) ও সমমানের পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে।

এবার গড় পাসের হার ৮২ দশমিক ২০ শতাংশ। গতবার এই পাসের হার ছিল ৭৭ দশমিক ৭৭ শতাংশ। এবার মোট জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ লাখ ৫ হাজার ৫৯৪ জন। গতবার জিপিএ-৫ পেয়েছিল ১ লাখ ১০ হাজার ৬২৯ জন।

এবার মোট পরীক্ষার্থী ছিল ২১ লাখ ২৭ হাজার ৮১৫ জন। এর মধ্যে পাস করেছে ১৭ লাখ ৪৯ হাজার ১৬৫ জন। গতবার মোট পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ছিল ২০ লাখ ২৬ হাজার ৫৭৪ জন, পাস করে ১৫ লাখ ৭৬ হাজার ১০৪ জন।

এবার শতভাগ পাস করা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সংখ্যা ২ হাজার ৫৮৩। এ ছাড়া একজনও পাস করেনি—এমন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সংখ্যা ১০৭।- প্রথম আলো

একজনও পাস করেনি—এমন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সংখ্যা ১০৭।এদিকে এসব প্রতিষ্ঠানের ছাত্রীদের নিয়ে বেশ বিপদে পড়ে গেছেন তাদের বাবা-মা। তাদের বিয়ে নিয়েও চিন্তায় পড়ে গেছেন তাদের ফ্যামিলির লোকজন। তাদের বিয়ের জন্যে পাওয়া যাচ্ছে না কোন পাত্র।এবার পাশ না করতে পারলে রিকশাওয়ালাদের সাথে বিয়ে দিয়ে দেবো। এমন উক্তি করে তারা বিপদে পড়ে গেছেন।পাওয়া যাচ্ছে না কোন রিকশাওয়ালাও।

এমনি অনেক রিকশাওয়ালাকে জোরজবরদস্তি করে রাজি করানো যাচ্ছে না।তাদের কিছু জিজ্ঞেস করা হলে মুখের উপর তারা বলে দিচ্ছে “যামু না মামা”

কিন্তু কোথাও যাবার কথা নয়। বরং তাদের প্রলোভন দেখানো হচ্ছে বিয়েতে রাজী করানো যাচ্ছে। এমনকি তাদের দেখানো হচ্ছে যৌতুকের প্রলোভন। বাড়ি, গাড়ি,ব্যাংক ব্যালেন্স সবকিছুতেই তারা বুড়ো আঙুল দেখাচ্ছেন।সবকিছুই তাদের কাছে তুচ্ছ তবুও তারা ফেইল করা মেয়েদের বিবাহ করবে না।

জনৈক এক রিকশাওয়ালা জানান,“মামা আমরা অশিক্ষিত হইবার পাড়ি। তয় শিক্ষার মূল্য তো বুঝি। নেপুলিয়ান না কোন বিজ্ঞানি জানি কইসে,আমারে একটা শিক্ষিত মা দাও, আমি তোমাদের শিক্ষিত জাতি উপহার দেবো। তাই দেশ ও জাতির কল্যানে আমি ফেইল করা মেয়ে বিবাহ করতে পারবো না।”

ফেইসবুকার মোটিভেশনাল স্পিকাররাও ফেইল করাদের নিয়ে বিপদে পড়ে গেছেন। দুই একটা মোটিভেটেড ভিডিও পোস্ট করার পর সেখানে লাইক কমেন্ট কিছু পড়ছে না। পরে গোপন সূত্রে জানা যায় যারা ফেইল করেছে বাসা থেকে তাদের ফোন কেড়ে নেওয়া হয়েছে। তাই তারা ভিডিও দেখতে পারছে না। এ নিয়ে মোটিভেশনাল স্পিকার খুব হতাশ। কিন্তু তবুও তার নিউজফিডে অন্যের মোটিভেশনাল স্ট্যাটাস কপি মেরে শেয়ার করছেন। জিতবে তুমি টাইপ উক্তিতে ভরে যাচ্ছে তার ওয়াল। -ডেস্ক