(দিনাজপুর২৪.কম) লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জ পৌর শহরের ব্যবসায়ী মোঃ শামছুদ্দিন বিভিন্ন এনজিও ও ব্যাংক থেকে ঋণ নিয়ে ব্যবসা শুরু করেন। ব্যবসায়ের লোকসান গুনতে গুনতে তার সুদে আসলে ঋণের বোঝা দি’গুন হয়ে দাড়ায়। এতে করে সহায়-সম্বলহীন ব্যবসায়ী নিরুপায় হয়ে ঋণ পরিশোধের তাগীদে নিজের কিডনী বিক্রি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। ব্যবসায়ী শামছুদ্দিন জানান, রামগঞ্জ ব্রাক ব্যাংক থেকে ৩ লক্ষ ২৭ হাজার টাকা ব্রাক মাইক্রো ক্রেডিট থেকে ২ লক্ষ ৪৭ হাজার টাকা যাহার মামলায় ৩গুন রায় দিয়ে যা সুদে আসলে দাড়ায় ৭ লক্ষ ৪২ হাজার টাকায়। ব্যাংক এশিয়া রামগঞ্জ শাখা থেকে ১ লক্ষ ২৭ হাজার টাকা তন্মেধ্যে ৭৭ হাজার টাকা পরিশোধ শেষে ৫০ হাজার টাকা দাড়ায়। উদ্দীপন এনজিও’র ৬৫ হাজার টাকা ঋণের মামলা চলমান। বিভিন্ন ব্যবসায়ীর কাছ থেকে হাত লেনদেনে ৪ লক্ষ টাকা ঋণ সহ মোট ১৫ লক্ষ ১৯ হাজার টাকা ঋণ যাহার কারণে শামছুদ্দিনকে ৩টি প্রতিষ্ঠানের মামলায় ২৪ মাস জেল খাটতে হয়েছে। তারপরেও ঋণ পরিশোধ করার মত কোন সাধ্য নেই।

ব্যবসায়ী শামছুদ্দিন জানান- বৃদ্ধা মা, ৪ ভাই; পিতৃহীন ২ বোনের সংসারে শুধু মাত্র মাথা গোজার বসতভিটি টুকু ছাড়া অন্য কোন সম্পদ নেই। তাই পাওনাদারের চাপ সহিতে না পেরে নিজের শরীরের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গটি কিডনী বিক্রি করতে সিদ্ধান্ত নেন। -ডেস্ক