(দিনাজপুর২৪.কম) মুক্তিযুদ্ধের বিরোধিতা ও গণহত্যাকারী রাজাকার, আলবদর ও আলশামসদের তালিকা তৈরির কাজ চলছে বলে জানিয়েছেন মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক। তিনি বলেছেন, এই তালিকা অবশ্যই জাতির সামনে প্রকাশ করা হবে।

রোববার স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে একাদশ সংসদের প্রথম অধিবেশনের প্রশ্নোত্তর পর্বে মন্ত্রী এ কথা জানান।

আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য একেএম শামীম ওসমানের সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেন, আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধে জামায়াত রাজনৈতিকভাবে সিদ্ধান্ত নিয়ে বিরোধিতা এবং গণহত্যা ও ধ্বংসযজ্ঞ চালিয়েছিল। তাদের একটি তালিকা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে ছিল। কারণ তাদের রাষ্ট্রীয় তহবিল থেকে ভাতা দেওয়া হতো। কিন্তু ২০০১ সালে বিএনপি-জামায়াত ক্ষমতায় আসার পর নিজামী-মুজাহিদরা সেই তালিকা খালেদা জিয়ার সহযোগিতায় সরিয়ে ফেলেন।

মন্ত্রী বলেন, আমরা মুক্তিযুদ্ধের সেই বিরোধিতাকারী রাজাকার, আলবদর ও আলশামসদের তালিকা তৈরির কাজ শুরু করেছি। জেলা প্রশাসকদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে তালিকা তৈরি করে পাঠাতে। স্বাধীনতার পর ৪৮ বছরে অনেক পট-পরিবর্তন হয়েছে। আমরা চাই না নিরপরাধ কারও নাম জড়িত হোক।

জাতীয় পার্টির সদস্য মুজিবুল হক চুন্নুর সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, আমাদের গত সরকারের সময় মুক্তিযোদ্ধাদের সঠিক তালিকা করতে যাচাই-বাছাইয়ের জন্য দেওয়া হয়েছিল। অধিকাংশ উপজেলায়ই তা সঠিকভাবে হয়নি। যেসব উপজেলায় যথাযথভাবে হয়েছে সেগুলো প্রকাশ করা হবে।

আওয়ামী লীগের সদস্য মেজর (অব.) রফিকুল ইসলাম বীরউত্তমের লিখিত প্রশ্নের জবাবে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধে অবদান রাখার কারণে এখন পর্যন্ত ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধীসহ ৩৩৯ জন বিদেশি নাগরিককে স্বীকৃতি ও সম্মাননা দেওয়া হয়েছে। পর্যায়ক্রমে মোট ১ হাজার ৭শ’ জনকে এই সম্মাননা দেওয়া হবে।-ডেস্ক