(দিনাজপুর২৪.কম) ময়মনসিংহের ফুলবাড়ীয়া উপজেলার কুশমাইল ইউনিয়নের ধামর গ্রামের বখাটে আসাদুল যৌতুক না পেয়ে গরম তেলে স্ত্রী নাসিমা খাতুনের শরীর গরম তেলে ঝলসে দিয়েছে।

ঘটনা ধামাচাপা দিতে স্বামীর বাড়িতে ৭ দিন একটি ঘরে তালাবদ্ধ করে রাখে শ্বশুর-শাশুড়িসহ স্বামীর বাড়ির লোকজন। আহত গৃহবধূকে সোমবার (১৪ অক্টোবর) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

উপজেলার নাওগাঁও ইউনিয়নের কাষ্ঠগড়া গ্রামের নুর মোহাম্মদের মেয়ে নাসিমা খাতুনের সাথে পার্শ্ববর্তী কুশমাইল ইউনিয়নের ধামর গ্রামের তোতা মিয়ার পুত্র আসাদুলের সাথে ৭ বছর আগে বিয়ে হয়। তাদের ঘরে আফিয়া (১) নামের কন্যা শিশু রয়েছে।

গরম তেলে ঝলসে যাওয়া নাসিমা খাতুন জানান, বিয়ের সময় তার স্বামীকে দেড় লাখ টাকাব যৌতুক দেয়া হয়। সম্প্রতি আরও ৫০ হাজার টাকা যৌতুকের জন্য বখাটে স্বামী আসাদুল মারপিট করতো। গত মঙ্গলবার (৮ অক্টোবর) দুপুরে রান্না ঘরে রান্না করার সময় স্বামী স্ত্রীর মধ্যে যৌতুকের টাকার জন্য কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে রান্না করা গরম তেল ছিটিয়ে দিয়ে স্ত্রীর শরীর ঝলসে দেয়।

বিষয়টি যাতে জানাজানি না হয় সে জন্য তেলে ঝলসে যাওয়া গৃহবধূকে একটি ঘরে তালাবদ্ধ করে ৭ দিন আটক করে রাখে স্বামী আসাদুল, শ্বশুর তোতা মিয়া, শাশুড়ি রহিমা খাতুন। সোমবার (১৪ অক্টোবর) সকালে নাসিমার বাপের বাড়ির লোকজন তালাবদ্ধ ঘর থেকে গৃহবধূকে উদ্ধার ফুলবাড়ীয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

গৃহবধূর ভাই এছাহাক আলী জানান, আমার বোনকে এর আগেও বিড়ির ছ্যাকা দিয়ে নির্যাতন করে তার স্বামী। আমার বোনকে গরম তেলে শরীর ঝলসে দেয়ার পর স্বামী শ্বশুর-শাশুড়ি বিষয়টি জানাজানি হলে কোলের শিশু সন্তানকে হত্যার হুমকি দেয়।

স্থানীয় নাওগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক জানান, গরম তেলে গৃহবধূর শরীর ঝলসে দেয়া হয়েছে। তার চোখের ডান পাশ মারাত্মকভাবে ক্ষত হয়েছে।-ডেস্ক