(দিনাজপুর২৪.কম) নিষেধাজ্ঞা থেকে মুক্ত সাকিব আল হাসানকে দলে নিতে চেয়েছিল বিগ ব্যাশের একটি দল। তাতে আপত্তি জানিয়েছে ক্রিকেট আস্ট্রেলিার (সিএ) ইনটিগ্রিটি বা নৈতিক পুলিশ বিভাগ। এমনটাই জানিয়েছে অস্ট্রেলিয়ার একটি সংবাদমাধ্যম।
জুয়াড়ির প্রস্তাব গোপন করায় গত বছরের ২৯শে অক্টোবর একবছরের জন্য নিষিদ্ধ হন সাকিব। নিষেধাজ্ঞা থেকে মুক্ত সাকিব নিচ্ছেন মাঠে ফেরার প্রস্তুতি। ওয়ানডের শীর্ষ অলরাউন্ডারকে বিগ ব্যাশের একটি দলে নিতে আগ্রহ দেখালেও সিএ’র নৈতিক পুলিশের আপত্তিতে সেটা সম্ভব হয়নি। সাকিবের সাম্প্রতিক অতীতই যে বিগ ব্যাশে খেলতে না পারার প্রধান কারণ সেটারও ব্যাখ্যা করেছে অস্ট্রেলিয়ার সংবাদমাধ্যম। ক’দিন আগে নিজের ইউটিউব চ্যানেলে দেয়া সাকিবের একটি বিবৃতিও প্রতিবেদনে জুড়ে দিয়েছে তারা। সেখানে সাকিব বলেছিলেন, ‘আপনি যদি ওভাবে বলেন, করতেই পারে (অবিশ্বাস), এটা আসলে অস্বাভাবিক কিছু না।

মনের কোনায় সন্দেহ জাগতেই পারে, এটা নিয়ে আফসোসের কিছু নেই। কারণ ঘটনাটাই এরকম, যে কোনো সময় যে কারও মনের কোনায় সন্দেহ জাগতে পারে। তবে আমার ধারণা, আমার প্রতি সবার আগে যে বিশ্বাস ছিল, এখনও থাকবে।’

১০ই ডিসেম্বর থেকে শুরু বিগ ব্যাশে খেলার সম্ভাবনা নেই সাকিবের। এর আগে মেলবোর্ন রেনেগেডস ও অ্যাডিলেইড স্ট্রাইকার্সের হয়ে দুই মৌসুম বিগ ব্যাশে খেলেছেন সাকিব।

সাকিব আল হাসানের সুযোগ এসেছিল পাকিস্তান সুপার লীগে (পিএসএল) খেলারও। টি-টোয়েন্টি র‌্যাঙ্কিংয়ের দ্বিতীয় সেরা অলরাউন্ডারকে নিতে চেয়েছিল মুলতান সুলতানস। প্লেয়ার ড্রাফটে নাম না থাকায় পিএসএল খেলার সুযোগ হারান টাইগার অলরাউন্ডার। লঙ্কান প্রিমিয়ার লীগে (এলপিএল) খেলার জন্য আগ্রহী হলেও পাননি বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের ছাড়পত্র। -ডেস্ক