(দিনাজপুর২৪.কম) সুরকার, বেহালাবাদক, সংগীতজ্ঞ, গীতিকার এবং সংগীত পরিচালক আলাউদ্দিন আলী আর নেই। গতকাল চিকিৎসাধীন রাজধানীর একটি হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন (ইন্না লিল্লাহি….রাজিউন)। তিনি ১৯৫২ সালের ২৪ ডিসেম্বর জন্মগ্রহণ করেন। সংগীত পরিচালক হিসেবে তিনি সাতবার এবং গীতিকার হিসেবে একবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করেন। তিনি এমন একজন সংগীত পরিচালক ও গীতিকার যার সবগুলো গানই শ্রোতাপ্রিয় হয়েছে। বাংলাদেশের যত সংগীত জগতে কিংবদন্তী আছেন, তাদের মধ্যে অন্যতম আলাউদ্দিন আলী। তার সুরের ছোঁয়ায় অনেক গানই প্রাণ পেয়েছে। আর এসব গানের জন্যই মানুষের হৃদয়ে অমর হয়ে থাকবেন তিনি।

তার জনপ্রিয় গানগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো ‘একবার যদি কেউ ভালোবাসতো’, ‘যে ছিল দৃষ্টির সীমানায়’, ‘প্রথম বাংলাদেশ, আমার শেষ বাংলাদেশ’, ‘ভালোবাসা যতো বড়ো জীবন তত বড়ো নয়’, ‘দুঃখ ভালোবেসে প্রেমের খেলা খেলতে হয়’, ‘হয় যদি বদনাম হোক আরো’, ‘আছেন আমার মোক্তার আছেন আমার ব্যারিস্টার’, ‘সুখে থাকো’, ‘ও আমার নন্দিনী হয়ে কারও ঘরণী’, ‘সূর্যোদয়ে তুমি, সূর্যাস্তেও তুমি ও আমার বাংলাদেশ’, ‘বন্ধু তিন দিন তোর বাড়ি গেলাম দেখা পাইলাম না’, ‘যেটুকু সময় তুমি থাকো কাছে, মনে হয় এ দেহে প্রাণ আছে’, ‘এমনও তো প্রেম হয়’, চোখের জলে কথা কয়’, ‘সবাই বলে বয়স বাড়ে, আমি বলি কমে রে’, ‘আমায় গেঁথে দাওনা মাগো, একটা পলাশ ফুলের মালা’, ‘শত জনমের স্বপ্ন তুমি আমার জীবনে এলে’, ‘কেউ কোনো দিন আমারে তো কথা দিল না’, ‘পারি না ভুলে যেতে, স্মৃতিরা মালা গেঁথে’, ‘জন্ম থেকে জ্বলছি মাগো’, ‘আমার মনের ভেতর অনেক জ্বালা আগুন হইয়া জ্বলে’, ‘হায়রে কপাল মন্দ চোখ থাকিতে অন্ধ’ ইত্যাদি।

ব্যক্তিগত জীবন

তিনি নজরুলসংগীত শিল্পী সালমা সুলতানাকে (মৃত্যু ২০১৬) বিয়ে করেন। তাদের মেয়ে আলিফ আলাউদ্দিন একজন সংগীতশিল্পী। -ডেস্ক