(দিনাজপুর২৪.কম) ফেনীর মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফিকে হত্যার ঘটনায় পলাতক ওসি মোয়াজ্জেমকে খুঁজে বের করতে চেষ্টার কোনো ক্রটি হচ্ছে না। “খুব শিগগিরই ধরা পড়বে এবং তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সোমবার (১০ জুন) সচিবালয়ে সড়ক পরিবহন মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে সাংবাদিকদের সঙ্গে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময়কালে তিনি এসব কথা বলেন।

মাদ্রাসা শিক্ষার্থী নুসরাত হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় বিতর্কিত নোয়াখালীর সোনাগাজী থানার সাবেক ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোয়াজ্জেম হোসেন এখন কোথায়? তিনি গ্রেপ্তারি পরোয়ানা মাথায় নিয়ে পালিয়েছেন!

গ্রেপ্তারি পরোয়ানা মাথায় নিয়েই পালিয়ে যাওয়ার খবরে পুলিশের ভূমিকা নিয়ে নানা প্রশ্নের জন্ম দিয়েছে বিভিন্ন মহলে। শুধু তাই নয়, ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)-এর পক্ষ থেকেও গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়েছে।

এ বিষয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ফেনীর মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফিকে হত্যার ঘটনায় পলাতক ওসি মোয়াজ্জেমকে খুঁজে বের করতে কারও কোনও গাফিলতি নেই। ‘এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা খুবই কঠোর। এক্ষেত্রে কারও শৈথিল্য দেখানোর সুযোগ নাই।’

ওসিকে গ্রেপ্তার করতে না পারায় সরকারের ব্যর্থতা আছে কিনা- এই প্রশ্নে কাদের বলেন, “অ্যারেস্ট… দেখুন একটা লোক পলাতক হলে তাকে অ্যারেস্ট করা কষ্টকরই হয়। তবে তাকে খুঁজে বের করার চেষ্টার কোনো ক্রটি হচ্ছে না। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সাথে কথা বলেছি, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়- দে আর ভেরি সিরিয়াস।”

মোয়াজ্জেমের গ্রেপ্তার না হওয়ার পেছনে রাজনৈতিক কোনো প্রভাব কাজ করেছে কি না- সেই প্রশ্ন করেন একজন সাংবাদিক।

উত্তরে ওবায়দুল কাদের বলেন, “আমার তা মনে হয় না। এ বিষয়টা নিয়ে সরকার কঠোর অবস্থানে এবং প্রধানমন্ত্রী এ ব্যাপারে খুব সিরিয়াস। সোনাগাজী আওয়ামী লীগের প্রেসিডেন্ট এ মামলায় কারাগারে আছে, সরকারের পক্ষ থেকে কোনো প্রকার গাফিলতি, কোনো প্রকার দুর্বলতা নেই।”

বিরোধী দল বিএনপির আন্দোলন প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘তারা আন্দোলনের ডাক দিয়ে ঘরে বসে হিন্দি সিরিয়াল দেখে আর মোবাইল ফোনে পুলিশের মুভমেন্টের খবর নেয়। তারা যদি আন্দোলনের মাঠে না যায় সেক্ষেত্রে সরকারের কী করার আছে। ’

এই সংসদ অবৈধ, রুমিন ফারহানার এমন মন্তব্যের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘সংসদ যদি অবৈধ হয় তাহলে সেই সংসদের সদস্য হওয়ার জন্য তিনি এত কিছু করলেন কেন?’ -ডেস্ক