(দিনাজপুর২৪.কম) ১৯৮৬ সালে আর্জেন্টিনাকে ফুটবল বিশ্বকাপের শিরোপা জিতিয়ে নায়ক বনে যান দিয়েগো ম্যারাডোনা। পরের বছর বিয়ে করেন কিংবদন্তি এ ফুটবলার। তার বিয়ের অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত অতিথি ছিলেন ১২০০। বিশ্বের নামিদামী তখনকার বর্তমান ও সাবেক ফুটবলার ছিলেন তালিকায়। ম্যারাডোনার পর আর্জেন্টিনা ফুটবলের রাজপুত্র লিওলেন মেসি। তার বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হলো শুক্রবার। কিন্তু মেসির বিয়েতে আমন্ত্রিত অতিথি ছিল মাত্র ২৫০। দাওয়াত কপালে জোটেনি কিংবদন্তি দিয়েগো ম্যারডোনার। অথচ আর্জেন্টিনার ফুটবল ইতিহাসের সবচেয়ে বড় সুপারস্টার তিনি। তার কোচিংয়ে ২০১০ বিশ্বকাপে খেলেন লিওনেল মেসি। মেসির বিয়ের আমন্ত্রিত অতিথিদের তালিকায় নাম ছিল না বেশকিছু নামিদামী মানুষের। শোনা যাচ্ছিল, রিয়াল মাদ্রিদের পর্তুগিজ তারকা ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোকে দাওয়াত দেবেন মেসি। কিন্তু সেটা হয়নি। ক্লাব ফুটবলে মেসির বার্সেলোনার চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী রিয়াল মাদ্রিদ। এই ক্লাবের বর্তমান ও সাবেক খেলোয়াড়দের মধ্য থেকে মাত্র একজন মেসির বিয়ের দাওয়াত পেয়েছেন। তিনি হলেন, অ্যাঙ্গেল ডি মারিয়া। এক সময় রিয়াল মাদ্রিদে খেললেও এখন খেলেন ফরাসি ক্লাব প্যারিস সেইন্ট জার্মেইতে (পিএসজি)। মেসির স্বদেশি খেলোয়াড় বলেই ডি মারিয়া দাওয়াত পেয়েছেন। বার্সেলোনার বর্তমানের তারকা খেলোয়াড়দের প্রায় সবাই অনুষ্ঠানে ছিলেন। সম্প্রতি তৃতীয় সন্তানের বাবা হওয়ার কারণে অনুষ্ঠানে উপস্থিত হতে পারেননি আন্দ্রেস ইনিয়েস্তা। তবে অবাক করা কথা হলো, বার্সেলোনার কোচিং স্টাফের কেউ মেসির বিয়ের দাওয়াত পাননি। সম্প্রতি দায়িত্ব ছাড়া কোচ লুইস এনরিকেও নন । এমন কি মেসির ক্যারিয়ার গড়ার কারিগর সাবেক কোচ পেপ গার্দিওলাও আমন্ত্রণ পাননি। তবে মেসির বিয়ের অনুষ্ঠানে ছিলেন স্বদেশি তারকা ম্যানচেস্টার সিটির সার্জিও আগুয়েরো ও সাবেক সতীর্থ সে ফ্র্যাব্রিগাস (চেলসি)। মেসির আর্জেন্টাইন চার সতীর্থ দাওয়াত পান। তারা হলেন, সার্জিও আগুয়েরো, হাভিয়ের মাসচেরানো, অ্যাঙ্গেল ডি মারিয়া ও এজেকুয়েল লাভেজ্জি। আর বার্সেলোনার সাবেক খেলোয়াড়দের মধ্যে ছিলেন জাভি হার্নান্দেজ, কার্লোস পুওল ও স্যামুয়েল ইতো। ব্রাজিলিয়ান রোনালদিনহো দাওয়াত পেলেও অনুষ্ঠানে যেতে পারেননি। -ডেস্ক