(দিনাজপুর২৪.কম) ভারতের জনপ্রিয় টিভি শো ‘সাবধান ইন্ডিয়া’ থেকে বাদ পড়েছেন জনপ্রিয় বলিউড অভিনেতা সুশান্ত সিং।

দেশটির নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে চলমান শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে যোগ দেয়ার কারণে তাকে অনুষ্ঠানটি থেকে বাদ দেয়া হয়েছে বলে বিভিন্ন ভারতীয় সংবাদমাধ্যমে জানানো হয়েছে।

‘সাবধান ইন্ডিয়া’ থেকে বাদ পড়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সুশান্ত সিং নিজেই। মঙ্গলবার এক টুইট বার্তায় সুশান্ত সিং লেখেন, ‘সাবধান ইন্ডিয়ার সঙ্গে আমার সম্পর্ক শেষ।’
তার পোস্টে দুঃখ প্রকাশ করে একজন রিটুইট করেন, ‘সত্য বলার জন্য আপনাকে এই মূল্য দিতে হলো।’

এর জবাবও দেন সুশান্ত। মন্তব্যে তিনি লিখেছেন ‘এটা খুবই সামান্য মূল্য বন্ধু আমার। না হলে কিভাবে আপনি ভগত সিং, সুখদেব ও রাজগুরুর মুখোমুখি হবেন?’

ওই ব্যক্তির রিটুইটে সুশান্ত জবাবের বিশ্লেষণে অনেক ভারতীয় বলছেন, চলমান নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে জামিয়া শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভে সমর্থন দিয়েছেন তিনি। তাই শো থেকে তাকে বের করে দেয়া হয়েছে। সেই ইঙ্গিতই দিয়েছেন সুশান্ত।

এদিকে ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে দেয়া সাক্ষাৎকারে সুশান্ত বলেছেন, আমি মেধা বিক্রি করে খাই, তাই বলে বিবেক বিক্রি করিনি। অন্যদের কথা বলতে পারবো না। তবে নিজের বিবেকের কাছে পরিষ্কার থাকতে হবে আমাকে। বহু বছর পর আমার সন্তানরা যদি জিজ্ঞেস করে যখন ছাত্রছাত্রীরা মার খেয়েছিলো তখন তুমি কী করেছিলে? আমি আমার জবাব রেডি রাখতে চাই তাদের জন্য।’

গত ১৫ ডিসেম্বর নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে ভারতের জামিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা আন্দোলন করেন। প্রতিবাদী শিক্ষার্থীদের দমন করতে ওই দিন রাতে ক্যাম্পাসে প্রবেশ করে পুলিশ ও শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা চালায়।

পরদিন ওই পুলিশি হামলার তীব্র নিন্দা জানান সুশান্ত এবং সদ্য পাশ হওয়া নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করেন।

এর পরপরই খবর আসে জনপ্রিয় টিভি শোটির উপস্থাপনা থেকে তাকে বাদ দেয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গত, ২০১১ সাল থেকে ‘সাবধান ইন্ডিয়া’ অনুষ্ঠানটির উপস্থাপনা করে আসছিলেন সুশান্ত সিং। ২০১২ সালে রাজকুমার সন্তোষীর ছবি ‘দ্য লেজেন্ড অব ভগত সিং’ এ দেশপ্রেমিক মুক্তিযোদ্ধা সুখদেবের ভুমিকায় অভিনয় করে প্রশংসিত হন তিনি।

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন অনুসারে, ধর্মী নির্যাতনের শিকার হয়ে পাকিস্তান, আফগানিস্তান ও বাংলাদেশ থেকে যেসব হিন্দু, শিখ, বৌদ্ধ, জৈন, পারসি ও খ্রিস্টান ২০১৪ সালের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত ভারতে আশ্রয় নিয়েছে তাদের নাগরিকত্ব দিবে ভারত সরকার। -ডেস্ক