[images cols=”five”]
[image link=”#” image=”11686″]
[/images] (দিনাজপুর২৪.কম)
প্রিয়াঙ্কা শুটিং হাউসের টপ ফ্লোরটা সাজানো হয়েছে জমিদার বাড়ির আদলে। জমিদার বাড়ির অন্দরটা সাজানো হয়েছে জমিদারি কায়দায়। দেয়ালে থরে ধরে সাজানো আছে তৈলচিত্র। তৈলচিত্রের পাশেই টাঙানো আছে এক তরুণীর ছবি। সেই তরুণীই মিষ্টি জান্নাত। জমিদার বাড়ির মেয়ে। খুব আদরের। বেশ চঞ্চল আর চটপটে। ছবি থেকে বেরিয়ে সামনা সামনি এসে দাড়ালেন মিষ্টি। সাজপোশাকে ফুটে উঠেছে আভিজাত্য। মাথায় টিকলি আর শাড়িতে জমিদার বাড়ির মেয়েই ঠেকছে। সজল আহমেদ পরিচালিত ‘তুই আমার’ ছবিটির শুটিং বেশ আগে শুরু হয়েছে। ইতিমধ্যে পঞ্চাশ ভাগেরও বেশি কাজ শেষ হয়েছে। আজ চলছে দ্বিতীয় লটের শুটিং।

ক্যামেরা রেডি। আয়নার মুখটা একবার পরখ করে দাড়িয়ে গেলেন মিষ্টি। পাশে বসা সাইমন। মূলত সাইমন-মিষ্টির কেমিস্ট্রিই উঠে এসেছে ছবিতে। শর্ট দিচ্ছেন মিষ্টি। এর ফাঁকেই কথা হলো সজল আহম্মেদের সঙ্গে। জানালেন, এখানে রোমান্টিক দৃশ্যের শুটিং চলছে। এটি একটি জমিদার বাড়ি। ঘটনাক্রমে সাইমনের ঘরে ঢুকে পরে মিষ্টি। সেখানেই সে ‘আই লাভ ইউ’ বলে।’ স্ক্রিপ্টের দেখানো তরিকায় ‘আই লাভ ইউ’ বলেও ফেললো মিষ্টি। কিন্তু কোন কাজে এলো না।

শর্ট শেষে সায়মন আর মিষ্টি ফটোসেশনে যোগ দিলেন। ফটোসেশন শেষে কথা হলো দুজনের সঙ্গে। দুজনের কেমিস্ট্রি কেমন? সাইমনই আগে শুরু করলেন, ক্যামেরার সামনে দাড়ানোর আগে আলাপ করে নিই । কোনটা শর্টটা কিভাবে দেব প্ল্যান করে ফেলি। দুজন মিলে আগে প্র্যাক্টিস করছি। সবমিলে ওর সঙ্গে আমার কম্বিনেশনটা খুব ভালো।’

ছবিতে মিষ্টির চরিত্রটা কী ধরনের? ‘সবাই রোমান্টিক ক্যারেক্টারর জন্যই আমাকে ভাবে। এটাও রোমান্টিক। কিন্তু পুরোটাই  ডিফ্রেন্ট। আমার গেটআপেও ভিন্নতা আছে। ব্যক্তিগতজীবনে আমি যে রকম কাস্টিংটাও তেমন। আমার মনে হচ্ছে আমার ন্যাচারাল ক্যারেক্টারটা করছি।’

আর সায়মনের চরিত্রটা? ‘মিষ্টি জমিদার বাড়ির মেয়ে। এখন তো আর জমিদার প্রথা নেই। কিন্তু ট্রাডিশনটা আছে। এর আগে আমি ওদের বাড়িতে থাকি। দেখাশোনা করি। দুজনের মধ্যে রিলেশন ভালো। ও আমাকে পছন্দ করে। আমি যেহেতু তাদের বাড়িতে কাজ করি। তাই নিজে থেকে কিছু বলতে পারিনা।’ প্রেমের কথা কী মিষ্টি বলতে পারে? ’বারবার বলি। কিন্তু পরে সুইসাইড খেয়ে যাই!’

দুজনের লাভস্টোরিটা পর্দায় দেখতে অপেক্ষা করতে হবে কোরবানীর ঈদ পর্যন্ত। ঈদেই ছবিটির হলে মুক্তি পাবে বলে জানালেন ছবিটির পরিচালক। -ডেস্ক