(দিনাজপুর২৪.কম) মাহাথির মোহাম্মদ পদত্যাগ করায় মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী পদে কে আসছেন তা নিয়ে এরইমধ্যে আলোচনা শুরু হয়ে গেছে। গুঞ্জন উঠেছে, দেশটির প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পেতে পারেন উপপ্রধানমন্ত্রী দাতুক সেরি ওয়ান আজিজাহ ওয়ান ইসমাইল। তিনি ক্ষমতাসীন জোটের নেতা আনোয়ার ইব্রাহিমের স্ত্রী।

সোমবার দেশটির সংবাদমাধ্যম মালয় মেইল এ তথ্য জানায়।

একটি সূত্রের বরাত দিয়ে সংবাদমাধ্যমটি জানায়, ওয়ান আজিজাহকে অন্তর্বর্তীকালীন প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব দিয়ে গেছেন মাহাথির। দেশটির অর্থমন্ত্রী দাতুক সেরি আজমিন আলিকে পিকেআরের ডেপুটি প্রেসিডেন্ট এবং এর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা গৃহায়ন ও স্থানীয় সরকার মন্ত্রী জুরাইদা কামারুদ্দিনকে দলটি থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

২০১৮ সালে মাহাথির সরকার গঠন করার পর মালয়েশিয়ার প্রথম উপ-প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন আজিজাহ। একইসঙ্গে দেশটির নারী, পরিবার ও সমাজকল্যাণ মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্বরত তিনি।

সোমবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মাহাথিরের দল পার্টি প্রিবুমি বারসাতু মালয়েশিয়ার (পিপিবিএম) প্রেসিডেন্ট মুহিদ্দিন ইয়াসিন একটি পোস্টে জানান, ক্ষমতাসীন সরকার জোট পাকাতান হারাপান থেকে পদত্যাগ করেছে পিপিবিএম।

তিনি জানান, রোববার (২৩ ফেব্রুয়ারি) এক বিশেষ আলোচনা সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। একইসঙ্গে বারসাতু এমপিরা পাকাতান হারাপান ত্যাগ করবেন।

সোমবার এক বিবৃতিতে ইয়াসিন বলেন, প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদের ওপর বিশ্বাস রেখে সব এমপি একযোগে এ ঘোষণায় সই করেছেন।

মাহাথির ছিলেন বারসাতুর চেয়ারপারসন। তিনি তার মনোনীত উত্তরসূরি আনোয়ার ইব্রাহিমকে ছাড়াই নতুন সরকার গঠন করতে যাচ্ছেন, রোববার রাতে ছড়িয়ে পড়া এমন গুজবের মধ্যেই পদত্যাগ করলেন মাহাথির।

রোববার আনোয়ার অভিযোগ করে বলেন, সাবেক ক্ষমতাসীন দল ইউনাইটেড মালয়স ন্যাশনাল অর্গানাইজেশনকে (ইউএমএনও) সঙ্গে নিয়ে মাহাথিরের পার্টি ও তার নিজ দলের ‘বিশ্বাসঘাতকরা’ নতুন এক সরকার গঠনের ষড়যন্ত্র করছে।

২০১৮ সালে দুর্নীতির অভিযোগে ক্ষমতাচ্যুত হয়েছিল ইউএমএনও।

সূত্র জানায়, ইউএমএনও এবং ইসলামিক পার্টি পিএএসের কর্মকর্তাদের সঙ্গে মাহাথিরের দল ও আনোয়ারের দলের একটি অংশ বৈঠক করে। ধারণা করা হয়, নতুন জোট গঠন ও পাঁচ বছর প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালনে মাহাথিরকে সমর্থনের জন্য এ বৈঠক হয়।

এসব জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে পদত্যাগ করলেন ৯৪ বছর বয়সী প্রধানমন্ত্রী মাহাথির। একসময় আনোয়ারের হাতে ক্ষমতে তুলে দেবেন এমন প্রতিশ্রুতির মাধ্যমে ২০১৮ সালে নির্বাচনে বিজয়ী হয়েছিল তাদের জোট।

এর আগে ১৯৮১ থেকে ২০০৩ সাল পর্যন্ত ২২ বছর প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন মাহাথির। সেসময় উপ-প্রধানমন্ত্রী ছিলেন আনোয়ার। ১৯৯৮ সালে অর্থনৈতিক মন্দা মোকাবিলা করা নিয়ে দ্বন্দ্বে তাকে বহিষ্কার করেন মাহাথির। সমকামিতার অভিযোগে ১৯৯৯ থেকে ২০০৪ সাল পর্যন্ত কারাভোগ করতে হয় তাকে। পরে ২০১৮ সালের নির্বাচনের আগে মাহাথির আবারও তার সঙ্গে জোট গঠন করেন। -ডেস্ক